ডেস্ক: জাতীয় পুরস্কার কান্ড নিয়ে অসুন্তষ্ট রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এই পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে মাত্র ১ ঘন্টার উপস্থিতি আর ১১ জনকে জাতীয় পুরস্কার তুলে দেওয়া নিয়ে যে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে তাতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। সূত্রের খবর, এই ঘটনায় তিনি পুরোপুরি দোষী সাব্যস্ত করেছেন কেন্দ্রীয় তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রকের উপর। রাষ্ট্রপতি ভবনের দাবি তাঁরা গোটা ব্যাপারটা ঠিকমতো সামলাতে পারেনি। কিন্তু এই বিষয়ে মন্ত্রক জানিয়ে দিয়েছিল এই বিতর্ক সৃষ্টি করেছে ‘মুষ্টিমেয় হতাশাগ্রস্ত লোকজন’। কিন্তু এই ব্যাপারটা মোটেই মান্যতা দিচ্ছে না রাষ্ট্রপতি ভবন। তাঁদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এক সপ্তাহ আগেই তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রককে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে রাষ্ট্রপতি মাত্র ১১ জনকে সন্মান দেবেন।

কিন্তু কেন এই বিজ্ঞপ্তি এতদিন আগে জানানো হলনা সেটাই জানতে চেয়েছে রাষ্ট্রপতি ভবন। এই ক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতির সন্মান নষ্ট হয়েছে। সূত্রের খবর, এই মর্মে রাষ্ট্রপতি পিএমও অফিসে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন। কিন্তু পিএমও তরফ থেকে কোন উত্তর দেওয়া হয়নি। এপ্রিল মাসের গোড়ার দিকে মন্ত্রককে বলে দেওয়া হয়, রাষ্ট্রপতি মাত্র এক ঘন্টা সময় দিতে পারবেন। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রককে জাতীয় পুরস্কার প্রাপকদের তালিকাও চূড়ান্ত করতে বলা হয় যাদের রাষ্ট্রপতিকে দিয়ে পুরস্কার দেওয়াতে চায় তারা।

১ মে মন্ত্রকের সচিব এন কে সিনহা রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে তাঁর সেক্রেটারি সঞ্জয় কোঠারির সঙ্গে দেখা করেন রাষ্ট্রপতির অনুষ্ঠানের তালিকা চূড়ান্ত করতে। মন্ত্রকের তৈরি করা ১১ প্রাপকের তালিকাও তিনি নিয়ে যান। ৩মের অনুষ্ঠানের চূড়ান্ত নির্ঘন্ট নিয়ে আলোচনার পর দুই সেক্রেটারি রাষ্টপতিকে জানিয়ে দেন বলে জানা গিয়েছে। সুতরাং এই ঘটনার থেকে বোঝা যায় মন্ত্রক সব কথা আগের থেকেই জানত। কিন্তু তাও এত বড় গাফিলতি নিয়ে সমালোচনার মুখে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রক। তবে এই ব্যাপারে মন্ত্রকের তরফ থেকে কোন বিবৃত দেওয়া হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here