UN news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সারা বিশ্বে ব্যাপকভাবে প্রভাব ফেলেছে নোভেল করোনা ভাইরাস। প্রতি নিয়ত বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সেই সঙ্গে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এই ভাইরাসের ফলে মৃতের সংখ্যাও। কীভাবে এই ভাইরাসকে বাগে আনা যাবে, তার উত্তর এখনও নেই বিজ্ঞানের কাছে। মানুষকে গৃহবন্দি করে সংক্রমণের হার কমানোর চেষ্টা করা হলেও, ভাইরাসকে নির্মূল করা সম্ভব নয়।

অন্যদিকে, বিশ্বজুড়ে করোনার এই মহামারীকে পৃথিবীর বিপদ সংকেত বলে উল্লেখ করলেন রাষ্ট্রসংঘের পরিবেশ বিভাগের প্রধান ইঙ্গার অ্যান্ডারসন। তাঁর মতে, মানুষ পরিবেশের ওপর অনেক চাপ সৃষ্টি করেছে। ফলে পৃথিবীর অনেক ক্ষতি হয়েছে। সেই কারণেই কোভিড-১৯ এর মতো মারণ ব্যাধির জন্ম হচ্ছে। এক সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘মানুষ পৃথিবীর অনেক ক্ষতি করেছে। পরিবেশের বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। সেই সঙ্গে জলবায়ুর পরিবর্তন হচ্ছে। বন্যপ্রাণ হত্যা করা হচ্ছে।’

অ্যান্ডারসন আরও যোগ করেন, ‘মানুষ দিনের পর দিন অরণ্য ধ্বংস করেই চলেছে নিজের প্রয়োজন মেটাতে। এর ফলে বন্য জীব নিজের বাসস্থান হারাচ্ছে। তারা খাবার পাচ্ছে না। ফলে মানুষের সঙ্গে তাদের দূরত্ব কমছে। শেষ কয়েক বছরে যত সংক্রামক ব্যাধি দেখা দিয়েছে তার ৭৫ শতাংশ এই বন্যপ্রাণীদের থেকেই কিন্তু হচ্ছে।’

আসলে এসবের মাধ্যমে পৃথিবী আমাদের একটি বার্তা দিতে চাইছে। আমাদের পরিবেশের ওপর আমরা খুব চাপ তৈরি করছি। ফলে তার একটা প্রতিক্রিয়াও তৈরি হচ্ছে। পৃথিবীর জনসংখ্যা ১০০০ কোটি খুব শীঘ্রই হতে চলেছে। ফলে আমাদের বেঁচে থাকতে হলে, পরিবেশকে বন্ধু হিসেবে পাশে রাখতে হবে’, বলেন রাষ্ট্রসংঘের পরিবেশ বিভাগের প্রধান।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here