ডেস্ক: ছোট্ট কাঁধগুলোয় ভার প্রচুর, এই বয়েসে ডানা মেলে স্বপ্ন দেখবে? না স্কুল থেকে ফিরে হোমওয়ার্ক নিয়ে বসবে? বাড়তি বোঝা হিসাবে একগাদা সিলেবাসের এক গুচ্ছ বইও রয়েছে। এই সবের মধ্যে শৈশবের অফুরান আনন্দ কখন নেবে তারা? নাকি বড়োদের মতো ছোট বয়সেই রুটিনে বাঁধা হয়ে থাকবে তাদের জীবন? এ সব বাঁধন থেকে শৈশব সম্ভবত মুক্তি পেতে চলেছে খুব শিগগিরি।

কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই কেন্দ্র নতুন আইন আনতে চলেছে যেখানে প্রথম এবং দ্বিতীয় শ্রেণীর পড়ুয়াদের আর ‘হোমওয়ার্ক’ দিতে পারবে না স্কুলগুলি। চলতি বছর সংসদে বাদল অধিবেশনেই এই আইনের খসড়া পেশ করবে কেন্দ্র। এছাড়াও সাংবাদিক সম্মেলনে জাভড়েকর আরও জানান, NCERT-র জটিল পাঠক্রম পরিবর্তন করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। সূত্রের খবর, শিশুদের জন্য সিলেবাস কমিয়ে প্রায় অর্ধেক করে দেওয়া হতে পারে। চলতি মাসের শেষ হওয়ার আগেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী বলেন, পুঁথিগত শিক্ষা ছাড়াও শারীরিক এবং মানসিক উন্নয়ন প্রয়োজন হয় একটি পড়ুয়ার। শিক্ষা মানে কেবল মুখস্থ করে লিখে খাতা ভরানো নয়। শিক্ষার ব্যাপ্তির কোনও শেষ নেই। তাই পড়ুয়াদের উপর থেকে চাপ কমিয়ে নিতে এই অভিনব উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। প্রসঙ্গত, গতকালই পাশ-ফেল ফিরে আসার বিষয়টি জানিয়েছিলেন প্রকাশ জাভড়েকর।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here