নিজস্ব প্রতিবেদক, কালনা: কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বাড়িতে ঢুকে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করল এক ব্যক্তি। বাধা দেওয়ায় বধূর নলি কেটে খুন করার অভিযোগও উঠলো ওই প্রতিবেশী ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমান জেলার কালনা মহকুমার মন্তেশ্বর থানার ইচুভাগড়া গ্রামে। মৃত জামিলা খাতুনের দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত মোহর আলী সেখকেও আটক করেছে মন্তেশ্বর থানার পুলিশ।

মৃতের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, প্রায় ছয় বছর আগে কালনার নৌপাড়ার জামিলা খাতুনের সঙ্গে বিয়ে হয় মন্তেশ্বরের ইচুভাগরা গ্রামের বাসিন্দা মনিরুল শেখের। বিয়ের পর এক পুত্র সন্তানও হয় তাদের। কিন্তু স্ত্রীকে সন্দেহ করে মাঝে মধ্যে মনিরুলের পরিবারের লোকজন জামিলার ওপর অত্যাচার চালাতো বলে অভিযোগ। জানা গেছে, বেশ কয়েক দিন ধরেই প্রতিবেশী মোহর আলী সেখ ওই বধূকে কুপ্রস্তাব দিচ্ছিল। রবিবার স্বামীর অনুপস্থিতে বাড়িতে ঢুকে জামিনাকে কুপ্রস্তাব দেয় মোহর আলি। তাতে রাজি না হওয়ায় সোমবার জোর করে বাড়িতে ঢুকে পড়ে জামিলাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে সে। সেই সময় প্রবল ভাবে ধর্ষণে বাধা দেয় জামিলা। এতেই ক্ষীপ্ত হয়ে জামিলার গলার নলি কেটে খুন করে বলে অভিযোগ বধূর বাড়ির আত্মীয়দের। এই খুনের পেছনে মনিরুল ও তার মায়ের প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন জামিলার বাপের বাড়ির লোকজন। গোটা ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকা জুড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here