‘এক ইঞ্চি জমিও ছাড়ব না, সেনা হটাও’! ভূখণ্ডের অধিকার ফিরে পেতে মোদীকে বার্তা নেপালের

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভারতের নয়া মানচিত্র নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন চলছে নেপালে। এর মধ্যে সে দেশের প্রধানমন্ত্রী কেপি ওলি নিজের প্রতিক্রিয়া দিয়ে ফেলেছেন। তিনি জানিয়েছেন- নেপাল, ভারত ও তিব্বতের মাঝের ট্রাইজংশনে অবস্থিত কালাপানী এলাকা নেপালের অংশ। একই সঙ্গে ভারতের উদ্দেশে প্রচ্ছন্ন হুমকি দিয়ে তিনি বলেছেন, নয়াদিল্লির উচিত অবিলম্বে সেখান থেকে সেনা প্রত্যাহার করা।

জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখ পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা হওয়ার পরই নয়া মানচিত্রের ছবি প্রকাশ করেছিল ভারত সরকার। যেখানে নেপালের অন্তর্ভুক্ত কালাপানী এলাকাকে উত্তরাখণ্ডের এলাকা বলে দেখানো হয়। এতে উষ্মাপ্রকাশ করে নেপাল। প্রতিবেশীদের আপত্তি সত্ত্বেও ভারতের তরফে তা অস্বীকার করা হয় এবং বলা হয়, নয়া নকশা ভারতের সার্বভৌমত্বের প্রতীক। এই বক্তব্যের পরই নেপালের কমিউনিস্ট সরকারের প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিজেদের ভূখণ্ডের এক ইঞ্চিও কোনও দেশকে কব্জা করতে দেব না আমরা। ভারতকে ওই এলাকা খালি করতেই হবে। ওই এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়া হলে তারপরই আমরা কোনও ধরনের আলোচনার কথা ভাববো।

নেপালী প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, নিজেদের সীমান্ত রক্ষা করতে আমাদের সরকার পুরোপুরি সমর্থ। তবে কালাপানী অঞ্চল নিয়ে বিতর্ক আচমকা ছড়িয়েছে এমনটা নয়। বহু বছর ধরেই এখানে ভারতীয় সেনা মোতায়েন করা রয়েছে। কিন্তু, আচমকা ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার হওয়ার পর থেকেই প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হয়েছে যার জেরে বিক্ষোভ চরমে উঠেছে নেপালে। এর পেছনে অবশ্য কিছুটা হলেও পরোক্ষভাবে চিনের হাত রয়েছে বলে অনুমান কূটনৈতিক মহলের। তবে ভারতকে যে জমি ছাড়তে হবে, বারবার করেই সেই বিষয়টি স্পষ্ট করে দিয়েছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী।

তাই ভারতকে কেবল মানচিত্রে বদল আনলে হবে না। সেই ভূখণ্ড যেহেতু নেপালের তাই তাদের হাতেই ছেড়ে দিতে হবে বলে দাবি। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, কালাপানী নিয়ে এতবছর নিশ্চুপ থাকা মানুষরা এখন কট্টর দেশভক্তির নামে অরাজকতা ছড়াচ্ছে। তাই বিবাদে না জড়িয়ে কূটনৈতিক পথেই সমস্যার সমাধান চেয়েছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here