Home Featured বেশি কথা বলা যাবে না, নতুন মন্ত্রীদের মুখে ঝুলিয়ে দেওয়া হল তালা!

বেশি কথা বলা যাবে না, নতুন মন্ত্রীদের মুখে ঝুলিয়ে দেওয়া হল তালা!

0
বেশি কথা বলা যাবে না, নতুন মন্ত্রীদের মুখে ঝুলিয়ে দেওয়া হল তালা!
Parul

মহানগর ডেস্ক: বাইরে বেশি কথা না বলাই ভালো। মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের বুঝিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, সূত্র উদ্ধৃত করে এমনটাই দাবি জাতীয় সংবাদমাধ্যমের। এ প্রসঙ্গে প্রাক্তন মন্ত্রীদের কথাও উঠে এসেছে বলে অনুমান।

নিজের সময়কালে সংবাদমাধ্যমকে বরাবরই এড়িয়ে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর ক্যাবিনেটের বাকিরাও মিডিয়ার সামনে খুব বেশি শব্দ খরচ করুক এমনটা চাইছেন না তিনি। সূত্র উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, যারা মন্ত্রিসভা থেকে বিদায় নিয়েছেন তাঁদের কথা তুলে ধরা হয়েছে নতুনদের সামনে। দলের বাকিদের সঙ্গে আলোচনা করে তবেই কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

বিদায় নেওয়া মন্ত্রীদের তালিকায় রয়েছেন হর্ষ বর্ধন। স্বাস্থ্য মন্ত্রীর দায়িত্ব ছিল তাঁর কাঁধে। তিনিও নিয়েছেন বিদায়। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন প্রকাশ্যে আলটপকা মন্তব্য করার জন্যই এই দেখতে হল হর্ষ বর্ধনকে। অতিমারির দ্বিতীয় পর্যায়ের সময়ে যথেষ্ট চাপে পড়েছিলেন তিনি। দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগে সংবাদমাধ্যমের সামনে কার্যত উড়িয়েছিলেন বিজয় পতাকা। তিনি জানিয়েছিলেন ‘ভারতে খেলা শেষ হওয়ার মুখে’। এরপরের খবর সকলের জানা। করোনা ভাইরাসের দাপটে শশ্মানের বাইরে দেখা গিয়েছিল সারি সারি শবদেহ। বিরোধীদের একাংশ কাঠগড়ায় তুলেছিলেন হর্ষ বর্ধনকে। শক্ত হাতে পরিস্থিতি সামাল না দেওয়ার জন্যই দেশের এই দুর্দশা বলে প্রতিনিয়ত আক্রমণ শানিয়ে গিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী।

ভারত সরকার মৃত্যুর সংখ্যা গোপন করছে এমন গুরুতর অভিযোগও উঠেছিল সেই সময়। আন্তর্জাতিক কাগজে লেখালেখি হয়েছিল বিস্তর। সব মিলিয়ে প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ওপর চাপ বেড়েছিল বিস্তর। তবে প্রকাশ জাভড়েকড় এবং রবিশংকর প্রসাদের অপসারণে বিষয়ে রয়ে গিয়েছে জল্পনা। আগামী দিনে ভোটের কথা মাথায় রেখেই ‘বাছাই করা’ নেতাদের জায়গা করে দেওয়া হয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here