sadhvi

ডেস্ক: মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকে ক্লিনচিট আগেই দিয়েছে এই মামলার তদতন্তকারী জাতীয় সংস্থা এনআইএ৷ এবার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার সাফ কথা, ভোপালে সাধ্বীর প্রার্থীপদ আটকানোর কোনও এক্তিয়ার নেই তাদের৷ বিষয়টা পুরোপুরি নির্বাচন কমিশনারের ওপর নির্ভরশীল৷ উল্লেখ্য বাবরি মসজিদ নিজে হাতে ভেঙেছেন, টিভি চ্যানেলকে একথা বলার পরে তাঁর নামে পুলিশকে অভিযোগ দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক৷ শেষ পর্যন্ত ভোপালে দ্বিগ্বিজয় সিং এর বিরুদ্ধে প্রজ্ঞাকে প্রার্থী করতে পারবে কিনা তা নিয়ে বিজেপির অন্দের যথেষ্ট সংশয় আছে৷ তাই পদ্ম শিবির ঊওপাল লোকসভা কেন্দ্রে অলোক সঞ্জর নামে এক গোঁজ প্রার্থীকে দাঁড় করিয়েছে৷

বাবরি ভাঙার কথা কবুল করে বেশ বড় শাস্তির মুখে পড়তে পারেন প্রজ্ঞা৷ এমনটাই আশঙ্কা করছে বিজেপির একাংশ৷ এদিকে ২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় পুরোহিত ও সাধ্বী প্রজ্ঞাকে নিদোর্ষ বলেছে এই মামলার জতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ৷ ভোপালে প্রার্থী হওয়া নিয়ে তদন্তকারী সংস্থার কোনো ঊক্তব্য থাকতে পারে না বলে জানিয়েছে এনআইএ৷ তাই তিনি প্রার্থী হলে এনআইএ-র পক্ষে কোনও আপত্তি নেই৷ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর শুরু থেকে ধারাবাহিকভাবে বেফাঁস মন্তব্য করে চলেছেন সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর৷ যার ফলে বিজেপি বেশ অস্বস্তিতে পড়েছে৷ ২৬/১১ মুম্বই হামলার সময় মহারাষ্ট্রের জঙ্গিদমন বিভাগের প্রধান হেমন্ত কারেকর তাঁর অভিশাপের ফলেই মারা গিয়েছে৷ এই প্রসঙ্গে তিনি নির্বাচন কমিশনের শোকজের চিঠিও পেয়েছিলেন৷ হলফনামা জমা দেওয়ার পর তিনি এ বিষয়ে সাংবাদিকদের স্পষ্ট জানান, আমি কখনওই কোনও শহিদকে অপমান করতে চাই না৷ আমি শুধুমাত্র নিজের অত্যাচারের কথা বলেছিলাম৷ তবে হেমন্তের অত্যাআরের কথা তিনি চিরকাল মনে রাখবেন বলেও জানান৷ তিনি জানান অত্যাচারীত, নীপিড়ীত, ধর্ষিতমহিলাদের প্রতিনিধি তিনি৷ তাই এদের সমস্যা নিজের জীবন দিয়ে বোঝেন বলে দাবি করলেন প্রজ্ঞা৷ ঘরে আছে রুপেরা ইঁট৷ তাতে শ্রীরাম খোদাই করা আছে৷ যা রামমিন্দর তৈরিতে কাজে লাগবে৷

মঙ্গলবার ভোপালে বিজেপি প্রার্থী সাধ্বী প্রজ্ঞা মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে হলফনামায় নিজেই জানান এ’তথ্য৷ তিনি সন্ন্যাসিনী৷ হলফনামায় মালেগাঁও মামলায় তাঁর কারাবাসের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে৷ পাশপাশি তিনি জানান তাঁর মোট সম্পদের পরিমান ৪ লক্ষ৪৪ হাজার ২২৮ টাকা৷ ৯৯ হাজার ৮২৪ টাকা ব্যাঙ্কের আ্যকাউন্টে আছে৷ এছাড়াও ২ লক্ষ ৫৪ হাজার টাকার কাছাকাছি গয়না আছে৷ তাঁর হাতে আছে ৯০ হাজার টাকা৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here