kolkata offbeat news
Highlights

  • ৩০ বছরে প্রায় ১৩ বার লাভা নির্গত হয়েছে। সর্বশেষ লাভা নির্গত হয়েছে ২০১৯ সালের ১৫ অক্টোবর
  • আগ্নেয়গিরি প্রায় ৭ মাইল বিস্তৃত
  • ট্যাংক মাত্র ৪০ মিনিট অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে। তাই ভয় থেকেই যাচ্ছে

মহানগর ওয়েবডেস্ক: এর আগে নায়াগ্রা জলপ্রপাতের ওপর দিয়ে হেঁটেছিলেন তিনি। এবার আরও একধাপ এগিয়ে হাঁটবেন জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরির ওপর। অবাক হচ্ছেন? বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর এই আগ্নেয়গিরি ‘জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরি’ নামে পরিচিত। মাসায়া ভলকানো আগ্নেয়গিরি ‘টিকিং টাইমবোম’ নামেও পরিচিত। কে? তিনি অ্যাডভেঞ্চার জগতের পরিচিত নাম নিক ওয়ালেন্ডা। তবে এবারের চ্যালেঞ্জ আরও ভয়াবহ। আর তা শুনেই শিউরে উঠেছে গোটা বিশ্ব।

৪ মার্চ এই মারাত্মক কাজটি করে দেখাবেন নিক। এর আগে তিনি নায়াগ্রা জলপ্রপাতের ওপর লাগানো দড়ির ওপর হেঁটেছিলেন। নিউ ইয়র্কের টাইমস স্কয়ারের একাধিক বিল্ডিং-এ প্রায় ২৫ বার দড়ি টাঙিয়ে যাতায়াত করেন। এবারেও আগ্নেয়গিরির ওপর থাকবে একটা মাত্র দড়ি। ভয়ংকর এই চ্যালঞ্জের কথা শুনে অবাক নেট দুনিয়া।

নিকারাগুয়ার একটি আগ্নেয়গিরির ওপর হাঁটা যথেষ্ট ভয়ংকর। নিক বলেছেন, সবচেয়ে বিপজ্জনক পথ পাড়ি দিতে চলেছেন তিনি। জানা গিয়েছে এই আগ্নেয়গিরি প্রায় ৭ মাইল বিস্তৃত। ৩০ বছরে প্রায় ১৩ বার লাভা নির্গত হয়েছে। সর্বশেষ লাভা নির্গত হয়েছে ২০১৯ সালের ১৫ অক্টোবর। জীবন্ত আগ্নেয়গিরি শুধু নয়। যখন হোক হতে পারে লাভা নির্গমন। আগ্নেয়গিরির বিভিন্ন সময়ের ভয়ংকর ছবি ও ভিডিও-ও প্রকাশ করা হয়েছে। যা দেখে আঁতকে উঠেছে সকলে। তবে নিকের সাফ বক্তব্য, তিনি ‘জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরি’-র ওপর হেঁটে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেবেন।

ট্যুইট করে প্রখ্যাত অ্যাডভেঞ্চার প্রেমী জানান, ইতিমধ্যেই এক পর্যবেক্ষণ দল গিয়ে আগ্নেয়গিরি দেখে এসেছে। কোথা দিয়ে হাঁটা হবে তাও ঠিক করা হয়েছে। দড়ির ওপর দিয়ে হাঁটার ক্ষেত্রে সবচেয়ে দীর্ঘতম পথ হবে এই আগ্নেয়গিরির ওপর অভিযান, এমনই দাবি। বলেন, উচ্চতার দিক থেকেও সবচেয়ে উঁচু দিয়ে হাঁটতে চলেছেন তিনি। জানিয়েছেন, ১ হাজার ৮০ ফুট ওপর দিয়ে হাঁটবেন। থাকছে অক্সিজেন সংকট, চোখ জ্বলে যাওয়ার ভয়।

তবে দুর্গম এই অভিযানে সবচেয়ে বড় বাধা বিষাক্ত গ্যাস। তাই অক্সিজেনের অভাব হবেই। তাই মাস্ক ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন নিক। মাস্কের সাহায্যে ফিল্টার করে অক্সিজেন গ্রহণ করা যাবে। নেওয়া হবে অক্সিজেন ট্যাংক-ও। তবে ট্যাংক মাত্র ৪০ মিনিট অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে। তাই ভয় থেকেই যাচ্ছে। অবশ্য, অসম্ভবকে সম্ভব করতে বিন্দুমাত্র পিছু হঠতে রাজি নন নিক ওয়ালেন্ডা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here