বিশ্বের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ধীর, ভারত এখনও দ্রুত এগোচ্ছে, নির্মলার ব্যাখ্যা

0
36
kolkaya bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার বলেছিলেন, এটা অভাবনীয় পরিস্থিতি৷ নগদ সঙ্কটে গত ৭০ বছরে অভূতপূর্ব সঙ্কটের মধ্যে দাঁড়িয়ে দেশ৷ সরকারকে দ্রুত পদক্ষেপ করতে হবে৷ তাত্পর্যপূর্ণভাবে এরপরের দিনই ভারতের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ তাঁর দাবি, সারা বিশ্বের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার খুবই ধীর৷ এই অবস্থায় ভারত ভালোই এগোচ্ছে৷ আমাদের দেশ চিন ও আমেরিকার চেয়ে ভালো জায়গায় আছে৷ এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি বলেন, বিশ্বের মন্দার পরিস্থিতিতে ভারতের অর্থনীতি এগিয়ে চলেছে৷

নির্মলা সীতারমন বলেন, এটা একটা প্রক্রিয়া৷ সরকার ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে বাণিজ্যিক সংস্কারের পদক্ষেপ নিয়েছে৷ এটা গুরুত্বের সঙ্গে আমরা করেছি৷ তিনি আরও বলেন, চিন-আমেরিকার বাণিজ্যিক যুদ্ধ এবং মুদ্রার অবমূল্যায়ণ এর ফলে বিশ্বের অর্থনৈতিক মানচিত্রে সঙ্কটজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে৷ দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে একগুচ্ছ পদক্ষেপ ঘোষণা করেন নির্মলা৷ তাঁর কথায়, মূলধনী বাজারে বিদেশি সংস্থার লগ্নি বা এফপিআই (ফরেন পোর্টফোলিও ইনভেস্টমেন্ট)-এর উপর থেকে বাড়তি সারচার্জ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত সরকারের। সাংবাদিক বৈঠকে এই ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী। এই সিদ্ধান্তের সুবিধা পাবেন দেশি বিনিয়োগকারীরাও। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে চাঙ্গা করতে ৭০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্রকল্প কেন্দ্রের। এছাড়া, গৃহঋণ, গাড়িঋণ সস্তা করতে ব্যাঙ্কগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আরবিআই-এর প্রস্তাবিত হারেই ঋণের সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা। রেপো রেটের ভিত্তিতে ঋণ পরিষেবার সূচনা। গাড়ি শিল্প সঙ্কটের মুখে৷ তাঁকে চাঙ্গা করতে সীতারমনের দাওয়াই, বিএস-IV শ্রেণির গাড়ি রেজিস্ট্রেশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে। ২০২০-র মার্চ পর্যন্ত কেনা এই শ্রেণির গাড়িকে বৈধ ধরা হবে। পুরনো গাড়ি বাতিল করতে নতুন নীতি ঘোষণা করা হবে।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন বলেন, মোদী সরকার কর সংগ্রহ প্রক্রিয়া সহজ করার পথে হাঁটছ৷ বিশেষ ম্যাকানিজম তৈরির পথে এগোচ্ছে সরকার৷ তিনি বলেন, সরকার এমন একটা প্রক্রিয়া চালু করতে চাইছে, যা হবে বন্ধুত্বপূর্ণ৷ অর্থাত্, প্রক্রিয়া একদিকে হবে সহজ, অন্যদিকে হবে ফেসলেস-অর্থাত্ কোনও মানুষের ওপর নির্ভর না করে অনলাইনে পুরো প্রক্রিয়া সম্পাদনের চেষ্টা করা হচ্ছে৷ নয়াদিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি বলেন, আয়কর দফতরের আধিকারিকরা কোনও করদাতাকে হেনস্থা করতে পারবেন না৷ তিনি আরও বলেন, আয়কর দফতর সমন, নোটিস, চিঠি পাঠাবে কেন্দ্রীয় ব্যবস্থার মাধ্যমে৷ প্রতি ক্ষেত্রেই থাকবে ইউনিক আইডি নম্বর৷ এই প্রক্রিয়া চালু হবে ১ অক্টোবর থেকে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here