kolkata news nirvaya

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত চার ধর্ষকের ফাঁসি হতে পারে চলতি বছরের শেষেই। আর এই খবর পাওয়ার পর থেকেই রাতের ঘুম রীতিমতো উড়ে গিয়েছে ওই চারজনের। সংবাদ মাধ্যমে চাউর হওয়া ধর্ষণের খবর ইতিমধ্যেই তাদের কাছে পৌঁছে গিয়েছে। প্রত্যেককে আলাদা আলাদা সেলে রাখা হয়েছে ঠিকই, কিন্তু সারাদিনে একবার যখনই তারা একত্রে হচ্ছে, তখনই কেউ না কেউ কানের সামনে ফাঁসির কথা উল্লেখ করছে। আর এতেই ভয়ে আরও সিঁটিয়ে গিয়েছে ওই চার ধর্ষক।

কোনদিন ফাঁসি হবে কেউ জানে না। প্রত্যেকটা দিন অনিশ্চয়তার মধ্যে কাটছে তাদের। হয়তো আজই শেষবার পৃথিবীর আলো দেখতে পাচ্ছে তারা। এই অবস্থায় খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছে চারজনেরই। ঘুম উড়ে গিয়েছে বহুদিন ধরেই। কবে সকালে উঠে শুনতে পাবে, আজই শেষ, এই অপেক্ষায় কাটছে দিন।

বলে রাখা ভাল, এখনও পর্যন্ত চার ধর্ষকের ডেথ ওয়ারেন্ট জারি করা হয়নি। তবে যে কোনও দিন এতে স্বাক্ষর করা হতে পারে বলে খবর। চার দোষীদের মধ্যে একজনকে জেল নম্বর ১৪ থেকে তিহাড়ের জেল নম্বর ২-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। সাধরণত তিহাড়ের ৩ নম্বর জেলে ফাঁসি দেওয়া হয়ে থাকে। সূত্রের খবর, যেই প্ল্যাটফর্মের ওপর ফাঁসি দেওয়া হবে তাও পুনর্নির্মাণ করা হচ্ছে। বিশেষ করে হাতে টানা লিভারের উপকরণ এবং কাঠের পাতাটন বদলের কথাও বলা হয়েছে।

একদিকে যখন ফাঁসির প্রস্তুতি তুঙ্গে, আরেকদিকে তখন রাত জেগে নিজেদের সেলে পায়চারি করে যাচ্ছে নির্ভয়ার ধর্ষকরা। প্রতিদিন খাবার দেওয়া হলেও তা খাচ্ছে তারা। মোটামুটি চার ধর্ষকের বডি ল্যাঙ্গুয়েজেই স্পষ্ট, তারা বুঝে গিয়েছে যে কোনও সময়ে ফাঁসির সিদ্ধান্ত হতে পারে। বিশ্বস্ত সূত্রে খবর, যখনই কোনও নিরাপত্তা কর্মী তাদের সেলের কাছে যাচ্ছেন, তারা একটাই প্রশ্ন করছে। ‘কোনও সিদ্ধান্ত এল?’ ফাঁসি যে কোনও সময় হতে পারে, সেই সম্ভাবনা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে দিনে একাধিকবার তাদের ডাক্তারি পরীক্ষা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here