kolkata bengali news

ডেস্ক: কোচবিহারে তৃণমূল বহিষ্কৃত নিশীথ প্রামাণিককে বিজেপি প্রার্থী করা নিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়েছে গোটা জেলাতেই। বৃহস্পতিবার বিজেপি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার পর কোচবিহারের জেলা নেতৃত্ব তাঁর বিরুদ্ধেই প্রচার করতে শুরু করে। ভাঙচুর করা হয় দলীয় কার্যালয়। হেনস্থার মুখে পড়তে হয় কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা রায়কেও। নিশীথ প্রামাণিককে প্রার্থী করার বিরুদ্ধে মন্তব্য করেন তিনিও। এই পরিস্থিতির মধ্যেই আজ দিল্লি থেকে কোচবিহারে ফিরছেন নিশীথ প্রামাণিক, তাও আবার ওয়াই ক্যাটেগরি নিরাপত্তা নিয়ে।

সূত্রের খবর, জেলায় ফিরে সভানেত্রীর সঙ্গে মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিয়ে পার্টি অফিসে জেলা কার্যকর্তাদের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন নিশীথ। এই প্রেক্ষিতে জেলার পরিস্থিতি কীরূপ থাকবে তা নিয়ে দ্বিধা দেখা যাচ্ছে। কিন্তু গতকালের বক্তব্য থেকে সম্পূর্ণ সরে এসে জেলা সভানেত্রী দাবি করেছেন, যে কোচবিহারে পরিস্থিতি এখন পুরো স্বাভাবিক, নিশীথের সমর্থনেই জেলার দলের হয় প্রচার করবে সবাই। অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের ধারণা নিশীথকে ঘিরে যেভাবে বিজেপির গোষ্ঠীকোন্দল চলছে তাতে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে এই আন্দাজ করেই তাঁকে ওয়াই ক্যাটেগরি নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে। তৃণমূলের অর্জুন সিং বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই এই অশান্ত পরিস্থিতির আবহ তৈরি হয়েছিল ব্যারাকপুরেও। তিনিও নিরাপত্তা নিয়েই এসেছিলেন দিল্লি থেকে।

 

প্রসঙ্গত, জেলা নেতৃত্বের দাবি, নিশীথ প্রামাণিককে প্রার্থী করে জয়ী আসন কখনই হাতছাড়া করবে না বিজেপি জেলা নেতৃত্ব। নিশীথের বদলে কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী পদে জেলা সম্পাদক দীপক বর্মনের নাম প্রস্তাব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা কমিটি। তাঁরা স্পষ্ট জানিয়েছেন, কোনওমতে তৃণমূলের বহিষ্কৃত নেতাকে প্রার্থী হিসেবে মেনে নেবেন না। এই প্রসঙ্গেই বৃহস্পতিবার কোচবিহারে বিজেপির কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায়। রাতেই প্রার্থী সমস্যা মেটাতে বৈঠকে বসে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। জেলার সভানেত্রী , সহ সভাপতি , জেলা সম্পাদক ছাড়াও এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরাও। বৈঠকে প্রার্থী পদের জন্য দীপক বর্মনের নাম প্রস্তাব করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here