pic-kolkata bengali news

ডেস্ক: এমনিতে সুযোগ পেলে কটাক্ষ করতে বিন্দুমাত্র কসুর করেন না শাসক বিরোধী কেউই। একে অপরের প্রতি ক্ষমা চাওয়া সেতো ভুলেও ভাবতে পারেন না কেউ। তবে এদিন সংসদে বদলে গেল সেই চিত্রটা। সবিনয়ে কংগ্রেস সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার কাছে ক্ষমা চাইলেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণমন্ত্রী নীতীন গড়কড়ি। কিন্তু হঠাৎ কেন এমন ক্ষমা চেয়ে বসলেন নীতীন?

জানা গিয়েছে, লোকসভায় কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ তোলা হয়, মধ্যপ্রদেশের গুণাতে আয়জিত একটি সরকারি অনুষ্ঠানে আমন্ত্রন জানানো হয়নি সেখানকার সাংসদ সিন্ধিয়া। যে অনুষ্ঠানে মূল উদ্যোগতা ছিল নীতীন গড়কড়ি। এই ইস্যু নিয়েই তোলপাড় শুরু হয়ে যায় শাসক বিরোধীদের। এরইমাঝে সবাইকে অবাক করে দিয়ে বিনিতভাবে সিন্ধিয়ার কাছে এই ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন নীতীন গড়কড়ি। তিনি বলেন, ‘আমন্ত্রনপত্রে ওনার নাম ছিল না এটা অবশ্যই আমার ভুল কারণ আমি ওই অনুষ্ঠানের মুক্ষ্য উদ্যোগতা ছিলাম।’ একইসঙ্গে তিনি বলেন, সাংসদ আসুক বা না আসুক আমার ওনাকে নিমন্ত্রণ করাটা দায়িত্ব ছিল। আমি আমার পুরো দপ্তরের তরফে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।’ যদিও তাঁর ক্ষমা চাওয়াতেই সন্তুষ্ট হয়নি কংগ্রেস। এরপরই মল্লিকার্জুন খাড়গে জানান, ‘কেন্দ্রে ক্ষমতায় থেকে সবার সঙ্গেই যদি নেতারা এমন ব্যবহার করে থাকেন তবে সেটা ঠিক নয়।’

উল্লেখ্য, শুক্রবার মধ্যপ্রদেশের গুণা লোকসভা এলাকায় শিবপুরী থেকে দেবাস পর্যন্ত ফৌড়লেন জাতীয় সড়কের উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণমন্ত্রী নীতীন গড়কড়ি। সেখানে বাকি সরকারি কর্মী থেকে বিজেপি নেতারা উপস্থিত থাকলেও আশ্চর্যজনকভাবে আমন্ত্রণ জানানো গুণার সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। এরপর সংসদে অধিবেশন চলাকালীন ওই ঘটনার প্রসঙ্গ তোলেন অপমানিত সাংসদ সিন্ধিয়া। এরপরই তাঁর কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন নীতীন গড়কড়ি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here