ডেস্ক: কিছুদিন আগে আরজেডির সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিহার রাজ্যে নিজের আধিপত্য বিস্তার করেছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। আরজেডির সঙ্গ ছেড়ে মুখ্যমন্ত্রীর গদিতে বসার ঠিক পরেই পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির অভিযোগে জেলে গিয়েছেন লালু প্রসাদ যাদব। এককালের এনডিএ বিক্ষুব্ধ জেডিইউ নেতা তথা নরেন্দ্র মোদীর ঘোর বিরোধী নীতীশের ফের বিজেপি প্রেম নিয়ে সন্দেহের গুঞ্জন উঠেছিল আগেই। এবার সরাসরি সেই সন্দেহের আগুনে পড়ল ঘি।

সম্প্রতি নাম না করে নিজের জোটসঙ্গী বিজেপিকে একহাত নিলেন নীতীশ। বিজেপিকে কটাক্ষ করে নীতীশ বলেন, ‘রাজনীতিতে কেউ কেউ বিভাজনকেই নীতি মনে করেন। বিভাজনের রাজনীতি করে কেউ কেউ ক্ষমতায় থাকতে চান। কিন্তু কোনও ভাবেই আমার রাজ্যে এইসব বরদাস্ত করা হবে না।’ তাঁর এই বক্তব্যের মূল লক্ষ্য ছিল গিরিরাজ সিংকে উদ্দেশ্য করে। নীতীশের স্পষ্ট জবাব, ‘কেউ কেউ মনে করেন সমাজে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পাবলিসিটি পাওয়া যাবে। এই সব জিনিস বরদাস্ত করা হবে না।’

উল্লেখ্য, মহাজোট ছেড়ে বেরিয়ে আসার পর নীতীশ কুমারকে পল্টু কুমার বলে কটাক্ষ করেছিলেন আরজেডি নেতা লালু প্রসাদ যাদব। তবে সেসব বিন্দুমাত্র পাত্তা দেননি নীতীশ। এদিকে দক্ষিণের রাজ্যগুলি কেন্দ্রের কাছে আলাদা সুবিধা দাবি করলে। তাঁদের সঙ্গে সঙ্গে বিহারকেও আলাদা সুবিধা দেওয়ার দাবি জানান নীতীশ কুমার। যা নিয়ে অবশ্য রা কাড়েন কেন্দ্র। যা নিয়ে অবশ্য একটা ক্ষোভ নীতীশের মনে আছে বলেই গুঞ্জন উঠছে।

তবে নীতীশের এই বিজেপি তোপে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা অবশ্য অন্য গন্ধ খুঁজে পাচ্ছেন। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, ‘২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে হাওয়া বদলের আভাষ পেয়েছেন নীতীশ কুমার। আর সেই কারনেই বিজেপি বিরোধী রব উঠেছে নীতীশের মুখে। লালু জেলে থাকলেও সম্প্রতি বিহার উপনির্বাচনে প্রমানিত হয়েছে বিহারে এখনও মুছে যায়নি লালু ম্যাজিক। এছাড়াও, একে একে এনডিএ বিমুখ হচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল যার অন্যতম উদাহরণ অন্ধ্রপ্রদেশে চন্দ্রবাবু নাইডু। শিব সেনাও হুমকি দিয়ে রেখেছে যে কোনও সময় এনডিএ জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসবে উদ্ধব ঠাকরের দল শিব সেনা। এছাড়া ফেডারেল ফন্ট গঠন করার লক্ষ্য নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে গিয়েছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও। দেশের বিভিন্ন জায়গার উপনির্বাচন মনে ভয় ধরিয়েছে বিজেপির। সব মিলিয়ে হাওয়া বদলের আভাষ পাচ্ছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার।’

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, ‘বিজেপির নীতি সম্পর্কে বেশ ভালো করেই অবগত নীতীশ। সব জেনেই পদ্মে ভেসেছিলেন নীতীশ। বর্তমান সময়ে যেভাবে বিরোধীরা এক ছাতার তলায় জমাট বাঁধতে শুরু করেছে। আর যেভাবে উপনির্বাচনে বারে বারে বিজেপির ব্যর্থতার ফল প্রকাশিত হচ্ছে। তাতে নীতীশের মনে ভয় ভয় ঢুকেছে। অতি সতর্ক রাজনীতিবিদ নীতীশ হাওয়া বদলের আভাষটা ভালোই পেয়েছেন। সেই হাওয়া যত বাড়বে নীতীশের গলার বিরোধী সুর ততই চড়তে থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here