‘কোয়েস বড় সফলতা দেয়নি, তবে ওদের সময় দিতে হবে’, মত কল্যাণ মজুমদারের

0
200
kolkata bengali news

সায়ন মজুমদার: প্রতিবারের মতোই এবার শনিবারের সন্ধ্যায় ইস্টবেঙ্গলের তাঁবুতে বসেছিল ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা। তবে এবার শতবর্ষ হওয়ায় এই সাধারণ সভার জাঁকজমক ছিল অনেকটাই বেশি। তবে এসবের থেকেও সবথেকে বড় হয়ে যে কথাটা ক্লাব তাঁবুতে বারবার প্রতিধ্বনিত হলো, তা শুধুই কোয়েসময়।

সভা চলাকালীন একাধিক সমর্থক এবারের দল নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। বেশিরভাগ সমর্থকই জানান এবারের দল একেবারেই তাদের প্রত্যাশামত হয়নি। কেউ কেউ আবার কোয়েসের সঙ্গে ক্লাবের ভবিষ্যত নিয়েও পুনর্মূল্যায়নের দাবিও জানান। এছাড়া দলের সদস্য ও সমর্থকদের মধ্যেও একটা বিভাজনের চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ ওঠে।

সাধারণ সভায় কোয়েস বিরোধী কণ্ঠস্বর জোরালো হতেই আসরে নামেন শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার। তিনি জানান, ‘অনেকেই হয়তো কোয়েসকে দোষারোপ করছেন। কিন্তু এখন দোষারোপ করে লাভ নেই। বরং আমাদের কোয়েসকে সময় দিতে হবে। ওরা নতুন। আর যে দল আছে সেই দল ভালো হোক বা খারাপ, তাদের পাশে থাকতে হবে। আর আমরা কোয়েসের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করছি। আমরা ওনাদের জানাবো, ওনারা যদি সেই সুযোগ দেন, তাহলে জানুয়ারি উইন্ডোতে আমরা নিজেদের খরচায় দুজন খেলোয়াড় দলে নিতে চাই। আর বিভাজন নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। আমাদের কেউ বিভাজিত করতে পারবে না।’

এছাড়া কোয়েসের হয়েই সওয়াল করেন ক্লাব সচিব কল্যাণ মজুমদারও। তিনি বলেন, ‘গত বছর বা এই বছর আশানুরূপ সফলতা আসেনি। তবে সেটার জন্য মুষড়ে পড়লে চলবে না। সফলতা ও ব্যর্থতা নিয়েই জীবন। আমাদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে। আর কোয়েসকেও সময় দিতে হবে।’

তবে মাঠ নিয়ে ইস্টবেঙ্গল কোচকে খোঁচা দিতে ছাড়েন নি তিনি। ‘মাঠে সত্যি সমস্যা রয়েছে। যত চেষ্টাই হোক এই বর্ষায় মাঠ ঠিক রাখা যায় না। তবে এটা নতুন কিছু নয়। এর থেকেও খারাপ অবস্থায় অতীতে অনেক ফুটবলার ভালো ফুটবল উপহার দিয়েছেন। ফলে এবার তা হবে না কেন?’ প্রশ্ন কল্যাণ মজুমদারের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here