ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচনে দেশের উত্তরাংশের পাশাপাশি কংগ্রেসের অন্যতম নজর দাক্ষিণাত্যেও। এর আগে অভিনেতা থেকে রাজনীতিতে আসা কমল হাসানকে ভোটযুদ্ধে নিজেদের দিকে টানতে বেশ ভালরকম উদ্যোগ নিয়েছিল কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। বৈঠকও করেছিলেন কমল হাসানের সঙ্গে। তবে সদ্য তৈরি হওয়া কমল হাসানের দল মাক্কাল নিধি মায়াম কংগ্রেসের সঙ্গে যোগ দেবে কিনা সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছুই জানা যায়নি। এবার প্রকাশ্যে এল তা। ২০১৯ লোকসভার মহাযুদ্ধে রাহুল গান্ধীর কংগ্রেসের সঙ্গে জোটে যেতে কোনও আপত্তি নেই মাক্কাল নিধি মায়ামের। তবে শর্ত কিন্তু একটা রয়েছে। আর তা হল, ‘ডিএমকের সঙ্গে সঙ্গ ত্যাগ করতে হবে কংগ্রেসকে’।

সম্প্রতি তামিলনাড়ুর এক স্থানীয় চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে কমল হাসান বলেন, ‘আমি কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মেলাতে সবদিক দিয়েই প্রস্তুত। কিন্তু কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে আমার একটা শর্ত রয়েছে আর তা হল। কংগ্রেসকে তামিলনাড়ুর রাজনৈতিক দল ডিএমকের সঙ্গ ছাড়তে হবে। আর তা যদি সম্ভব হয় তাহলে ২০১৯ নির্বাচনের আগে কংগ্রেসের সঙ্গ দেওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত হয়ে যাব। পাশাপাশি কংগ্রেসকে আরও একটি প্রতিজ্ঞা করতে হবে যে এমএনএম ও কংগ্রেসের এই জোট তামিলনাড়ুর মানুষকে সর্বদা ভালোর দিকে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে।’

রাজনৈতিক মহলের মতে, কমল হাসান যে শর্ত কংগ্রেসের কাছে রেখেছে তা ভালো রকম বড়সড় একটি শর্ত। তামিলনাড়ুর রাজনীতিতে ডিএমকে এক অন্যতম নাম, সে তুলনায় গত ফেব্রুয়ারি মাসেই সিনেমা জগতের বাইরে এসে মাক্কাল নিধি মায়াম নামে নতুন দল প্রতিষ্ঠা করেছেন কমল হাসান। দেখতে গেলে তামিলনাড়ুতে সেভাবে এখনও প্রভাব ফেলতে পারেনি এই দল। এহেন অবস্থায় কংগ্রেসের পক্ষে কমল হাসানের এই শর্ত মেনে নেওয়া বেশ চাপের। যদিও দল গঠনের একেবারে শুরুতেই কংগ্রেসের সঙ্গ জোটবদ্ধ হওয়ার একটি সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন কমল হাসান। দল গঠনের পরপরই রাহুলের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। যদিও তামিলনাড়ুর রাজনৈতিক অবস্থা নিয়ে এই বৈঠক বলে দাবি করা হলেও। রাজনৈতিক মহল শুধু ওইটুকুই মানতে রাজি ছিল না। এবার তারই কিছুটা আভাষ এল বলা চলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here