news corona

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা সংক্রমণের কারণে গোটা বিশ্ব ব্যতিব্যস্ত। এরই মাঝে সম্প্রতি কিছু বিজ্ঞানী হু’কে উদ্দেশ্য করে খোলা চিঠিতে জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাস বায়ুবাহিত। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও বিষয়টিকে কার্যত মেনে নিয়েই ব্যাপারটি খতিয়ে দেখার কথা বলেছে। যদিও এরপরেই মানুষের মনে আতঙ্ক আরও কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ বায়ুবাহিত রোগের সংক্রমণ হার অনেক বেশি।

এই প্রসঙ্গে সিএসআইআরের ডিজি রাকেশ মিশ্র জানান, নতুন এই গবেষণায় দেখা গিয়েছে এই ভাইরাস বাতাসেও থাকতে পারে। কিন্তু তা একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্তই। ফলে আরো বেশিক্ষণ মাস্ক পরা এবং অন্যান্য সাবধানতা অবলম্বন করলেই যথেষ্ট। ‘নতুন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে ভাইরাসটি একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্তই বায়ুবাহিত। বড় ড্রপলেটে এই ভাইরাস বায়ুতে যতক্ষণ সক্রিয় থাকে, পাঁচ মাইক্রনের থেকে কম ড্রপলেটে এই ভাইরাস অনেক বেশিক্ষণ সক্রিয় থাকে।’

‘এর অর্থ যদি কোনও আক্রান্ত ব্যক্তি কথা বলে বা শ্বাস নেয়, তাহলে ভাইরাস তার থেকে বাতাসে ছড়িয়ে পড়বে এবং তা বেশ কিছুক্ষণ বাতাসে থাকবে। ফলে আমাদের মাস্ক বেশিক্ষণ পড়তে হবে। কোনও ব্যক্তি ঘর থেকে চলে গেলেই মাস্ক খুলে দিলে চলবে না। আর বাইরে গেলে তো মাস্ক পরতেই হবে। কিন্তু এই মুহূর্তে গাইডলাইনে কোনও বড় পরিবর্তন করা হবে বলে মনে হয় না। আর আমাদের অতিরিক্ত আতঙ্কিত হওয়ারও প্রয়োজন নেই’, বলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি হু’র উদ্দেশে একটি খোলা চিঠিতে ৩২টি দেশের ২৩৯ জন বিজ্ঞানী লিখেছেন, নোভেল করোনা ভাইরাস বাতাসেও ঘুরে বেড়ায়। এর প্রমাণও তারা পেয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, খুব ছোট পার্টিকেল বাতাসে ভেসে বেড়ায়। এই নিয়ে একটি আর্টিকেল আগামী সপ্তাহে তারা এক সায়েন্স জার্নালে প্রকাশও করবেন।

নিউ ইয়র্ক টাইমসকে ওই বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, হাঁচির ফলে বড় ড্রপলেটের মাধ্যমে কিছুক্ষণ এই ভাইরাস বাতাসে তো থাকেই, ছোট পার্টিকলের মাধ্যমেও অনেক্ষন এই ভাইরাস বাতাসে ভেসে বেড়ায়। সেই সময় কোনও ব্যক্তি নিশ্বাস নিলে, তিনি সংক্রামিত হতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here