international news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সংখ্যাতত্ত্বের হিসেব বলছে করোনার জেরে মৃত্যুর হারে চিনতেও ছাপিয়ে গিয়েছে ইতালি। লাফিয়ে লাফিয়ে সেখানে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, সঙ্গে মৃত্যুও। ভয়াবহ এই পরিস্থিতির মাঝেই কিছুটা আশার আলো দেখালো ইতালির ছোট্ট শহর ভো। মৃত্যু তো দূরের কথা একধাক্কায় ইতালি এই শহরে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে শূন্য। ইতালির ভো শহরের অভিনব পন্থাকে আঁকড়ে ধরে নতুন করে করোনাকে পরাস্ত করার পথ খুঁজছে গোটা বিশ্ব।

ইতালির ভেনিস থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই শহর ভো। ২৩ শে ফেব্রুয়ারি প্রথম এই শহরে করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া যায়। তারপর থেকে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে সংখ্যাটা। গত মাসে এখানে ৩৩০০মানুষের করোনা টেস্ট হয়। প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, শহরের মোট জনসংখ্যার ৩ শতাংশ মানুষ করোন আক্রান্ত হয়েছেন। তড়িঘড়ি সরকারিভাবে শহরে করোনা আক্রান্ত প্রত্যেককে কোয়ারান্টিনে রাখা হয়। কড়া নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়, কোনও মানুষ কারও সঙ্গে দেখা করবেন না। ঘরের বাইরে বেরিয়ে কোথাও যেতে পারবেন না। যদি কেউ এই নির্দেশ অমান্য করেন সেক্যেত্রে করা ব্যবস্থা নেবে সরকার। কারোনা আক্রান্তরা প্রশাসনের নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করে রোগীরা। ফলও মেলে হাতেনাতে। এর মাত্র দুই সপ্তাহ পর ফের শহরবাসীর উপর করোনা টেস্ট করে সরকার। এরপরই মেলে সুখবর। দেখা যায় নতুন করে শহরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা শতকরা হারে দাঁড়িয়েছে ০.৪১ শতাংশ। মারণ ভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ে এই জয়ের পর শহরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছে প্রশাসন।

পাশাপাশি বিশ্বকে বার্তা দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে করোনা রোখার একমাত্র উপায় সর্তকতা। বাড়ির বাইরে না গিয়ে ঘরবন্দী হয়ে থাকা। যে শহরকে কিছুদিন আগেই রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছিল সরকার। সেটাই এখন হয়ে উঠেছে সেফ জোন। ইতালির ভো শহর থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন করে বেঁচে ওঠার আশা খুঁজছে গোটা বিশ্ব। তবে তার জন্য সবার আগে প্রয়োজন জনগণের সচেতনতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here