national news

Highlights

  • কাশ্মীর থেকে বিতাড়িত কাশ্মীরি পণ্ডিতদের এবার ঘরে ফেরার সময় হয়েছে
  • পৃথিবীর কোনও শক্তি কাশ্মীরি পণ্ডিতদের ঘরে ফেরা আটকাতে পারবে না
  • আশার আলো দেখছেন কাশ্মীর থেকে বিতাড়িত পণ্ডিতরা

মহানগর ওয়েবডেস্ক: উত্তপ্ত জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর, এবার দ্বিতীয় দফার কাজের জন্য প্রস্তুত হল সরকার। সোমবার দৃঢ়তার সঙ্গে রাজনাথ সিং বুঝিয়ে দিলেন, কাশ্মীর থেকে বিতাড়িত কাশ্মীরি পণ্ডিতদের এবার ঘরে ফেরার সময় হয়েছে। পৃথিবীর কোনও শক্তি কাশ্মীরি পণ্ডিতদের ঘরে ফেরা আটকাতে পারবে না। কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর এহেন মন্তব্যের পর কিছুটা আশার আলো দেখছেন কাশ্মীর থেকে বিতাড়িত পণ্ডিতরা।

আরও পড়ুন: কাশ্মীরে জইশ-লস্কর ঘাঁটি ধুয়ে সাফ করেছে সেনা! ‘শেষ’ টার্গেট এক হিজবুল মাথা

সালটা ১৯৯০। ভারত ইতিহাসে চির বিতর্কিত জম্মু কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপের বাড়বাড়ন্তের জেরে উপত্যকা ছাড়তে শুরু করেন কাশ্মীরে বসবাসকারী পণ্ডিতরা। এই মুহূর্তে বলতে গেলে কাশ্মীরের আদি বাসিন্দা সেই পণ্ডিতরা উপত্যকায় নেই বললেই চলে। এহেন সময় দ্বিতীয় বিজেপি সরকারের ক্ষমতায়নে, উপত্যকা থেকে জঙ্গিদের নিশ্চিহ্ন করতে ৩৭০ ধারা বাতিল করেছে সরকার। সরকারের দাবি, এই সিদ্ধান্তের জেরে বর্তমানে উপত্যকা বেশ শান্ত। এবার বেশ চড়া সুরে উপত্যকায় সরকারের দ্বিতীয় দফার কাজ কি হতে চলেছে তা ঘোষণা করে দিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। সোমবার এক জনসভা থেকে তিনি জানিয়ে দিলেন, ‘কাশ্মীরি পণ্ডিতরা ঘরে ফিরবেই। পৃথিবীর কোনও শক্তিই তাঁদের ঘরে ফেরা আটকাতে পারবে না।’

তবে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের ঘরে ফেরানোর আশ্বাসের পাশাপাশি পাকিস্তানকেও একহাত নিতে ছাড়েননি রাজনাথ। তিনি বলেন, ‘ভারতের ক্ষতি করলে, সে যেই হোক না কেন। আমরা তাকে শান্তিতে থাকতে দেব না। আক্রমণের পাল্টা জবাবটা আমরা আরও কড়া ভাবে ফেরত দিতে পারি।’ পাশাপাশি, সিএএ-র সমর্থনেও মুখ খুলে তিনি বলেন, ‘এই আইনে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তানে নির্যাতিত সংখ্যালঘুরা ভারতে নাগরিকত্ব পাবে। এর জেরে দেশের মুসলিমদের কোনও ক্ষতি হবে না। অকারণে বিষয়টিকে নিয়ে মানুষের মধ্যে ভুল বার্তা দেওয়া হচ্ছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here