kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: মমতা ব্যানার্জির হাত ধরে তৃণমূলে ফিরলেন মুকুল রায়। দীর্ঘ চার বছর পর আবার দেখা হল তৃণমূলে একদা এক ও দুই নম্বর ব্যক্তিত্বের। আজ বিকেল ৪.৪০ মিনিট নাগাদ তৃণমূল ভবনে সাংবাদিকদের সামনে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, আজ থেকে আবার আনুষ্ঠানিক ভাবে মুকুল রায় তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন।

তৃণমূললে যোগ দেওয়ার পর মুকুল রায় বলেন, ‘এই ঘরে আজকের এই সভায় আমার নিজের খুব ভাল লাগছে। পুরনো মানুষের সামনে দেখা হচ্ছে। বিজেপি থেকে বেরিয়ে নতুন আঙ্গিনায় আবার কথা বলতে পারছি। আমার ভাল লাগছে। বাংলা আবার তার নিজের জায়গায় ফিরবে। সামনে থেকে বাংলাকে নেতৃত্ব দেবেন ভারতের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমি বিজেপি করতে পারলাম না। সেই কারণেই পুরনো ঘরে ফিরে এলাম। বাংলায় যা পরিস্থিতি চলছে, তাতে কেউ বিজেপিতে থাকবে না।

আজ বিকেল ৪.৪০ মিনিট নাগাদ তৃণমূল ভবনে মুকুল রায় ও তার ছেলে শুভ্রাংশু রায়কে পাশে বসিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে মুকুল রায়কে উত্তরীয় পরিয়ে দলে স্বাগত জানান সদ্য দায়িত্ব পাওয়া সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। একইভাবে উত্তরীয় পরিয়ে দলে স্বাগত জানানো হয় মুকুল রায়ের ছেলে শুভ্রাংশু রায়কেও।

যে ক’জন মিলে তৃণমূল দল গড়েছিলেন, তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন মুকুল রায়। ১৯৯৮ সালের ১ জানুয়ারি জন্ম হয় তৃণমূলের। সীমিত সংগঠন নিয়ে নতুন ওই দলের যাত্রা শুরু হয় প্রবল শক্তিধর বামেদের বিরুদ্ধে। শুরুর দিকে নিজেদের জায়গা করে নেওয়া কঠিন হয়ে দাঁড়ায় তৃণমূলের কাছে। মাটি কামড়ে পড়ে থেকে আস্তে আস্তে জায়গা করতে থাকে তৃণমূল। গোটা রাজ্য তৃণমূল বিস্তারের পেছনে অন্যতম ভূমিকা যে মুকুল রায়ের ছিল, তা অস্বীকার করেন না তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি দলের তাবড় নেতারাও। মুকুল রায়ের সঙ্গে তৃণমূলের দীর্ঘ সেই সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায় ২০১৭ সালে। বিজেপিতে যোগ দেন মুকুল। তারপর আজ আবার তিনি তৃণমূলে ফিরলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here