মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিগত ১৫ দিনে রাজ্য তথা কলকাতায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আচমকাই বেড়ে গিয়েছে অস্বাভাবিক হারে। যার জেরে শহরের বেসরকারি হাসপাতালগুলির কোভিড বেড দ্রুত ফুরিয়ে আসছে। পরিস্থিতি যেদিকে গড়াচ্ছে, তাতে আগামী এক-দু’দিনের মধ্যেই শহরে বেসরকারি হাসপাতালে নতুন কোভিড রোগীদের জায়গা দেওয়া সম্ভব হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

গত ২৯ জুনও শহরে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১,৭৭২। কিন্তু ১৫ দিনের মধ্যে রবিবার পর্যন্ত তা বেড়ে ৩,৫৬৮-এ দাঁড়িয়েছে। যেই সংখ্যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। কেননা রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের হিসেব অনুযায়ী, কলকাতার সরকারি হাসপাতালে ২,০৬২টি কোভিড বেড রয়েছে। এবং শহরের ৩২টি বেসরকারি হাসপাতালে ১,৪১৪টি কোভিড বেড রয়েছে। অন্যদিকে, উত্তর ২৪ পরগনার নিউটাউন ও সল্টলেকে কোভিড বেডের সংখ্যা ৩৩৬। সবমিলিয়ে হিসেবটা ৩৮০০-র কাছাকাছি। অন্যদিকে শহরে বর্তমানে সক্রিয় আক্রান্ত ৩৫০০ পেরিয়ে গিয়েছে।

স্বাস্থ্য দপ্তরের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শহরের মোট ৩২টি কোভিড বেসরকারি হাসপাতালের মধ্যে ১৩টি-তে আর কোনও কোভিড বেড এই মুহূর্তে খালি নেই। বাকি বেসরকারি হাসপাতালগুলির মধ্যে সবমিলিয়ে ফাঁকা রয়েছে ২১৮টি শয্যা। যদিও এতে উদ্বেগের কোনও কারণ নেই বলেই জানাচ্ছেন স্বাস্থ্য দপ্তরের এক কর্তা। বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড চিকিৎসার বিছানা না থাকলেও সরকারি হাসপাতালে তা যথেষ্ট পরিমাণ রয়েছে বলেই দাবি করেছেন তিনি। সরকারি হাসপাতালের অন্তত ৭০ শতাংশ কোভিড বেড খালি বলে তিনি জানান। যদিও রোগী ভর্তির জন্য হন্যে হয়ে ঘোরা পরিবারের সদস্যরা অন্য কথা বলছেন। যেখানেই যাওয়া হচ্ছে বেড নেই বলেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে বলে অভিযোগ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here