kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, জঙ্গিপুর: করোনা রুখতে সারা ভারতজুড়ে লকডাউন জারি আছে। আর এর ফলেই চরম সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন মুর্শিদাবাদের বিড়ি শ্রমিকরা। যদিও কয়েকদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী শর্তসাপেক্ষে বিড়ি ব্যবসা চালু করার কথা বলেছিলেন নবান্ন থেকে। কিন্তু মালিক গোষ্ঠী এখনও তা চালু করেননি। তাদের বক্তব্য, বিড়ি উৎপাদিত হলেও সেই বিড়ি এখন বাইরে পাঠানোর কোনও উপায় নেই। তাই মুর্শিদাবাদের প্রায় ১৫ লক্ষ বিড়ি শ্রমিক এখন প্রবল আর্থিক কষ্টের মধ্য দিয়ে দিন অতিবাহিত করছেন।

মুর্শিদাবাদের সুতি এলাকার নুরজাহান বিবি নামে এক বিড়ি শ্রমিক বলেন, আমরা খুবই দরিদ্র। আমি বিড়ি বাঁধি ও আমার স্বামী দিনমজুরি করে কোনও রকমে সংসার চালাতাম। কিন্তু এখন লকডাউন থাকায় আমার বিড়ি বাঁধার কাজটা আর হচ্ছে না। এছাড়া আমার স্বামীও আর কাজ পাচ্ছে না। এদিকে আমাদের রেশন কার্ড না থাকায় সরকার থেকে কোনও রকম সাহায্যও পাইনি।

নুরজাহানের মতো নাজরেনা বিবি, সাইনুর বিবিদেরও প্রায় একই অবস্থা। প্রায় প্রত্যেকেরই এখন সংসার চালানো রীতিমতো কষ্টদায়ক হয়ে উঠেছে। সরিফুল সেখ নামে সুতি এলাকার এক বিড়ি মুন্সি জানিয়েছেন, বিড়ি কারখানার মালিকরা আমাদেরকে বিড়ি বাঁধার কাজ বন্ধ রাখতে বলেছেন। তাই আমরা এখন শ্রমিকদের কাছ থেকে বিড়ি সংগ্রহ করতে পারছি না।

এর পাশাপাশি মুর্শিদাবাদের ঔরঙ্গাবাদ এলাকার এক বিড়ি কোম্পানির মালিক জানিয়েছেন, আমাদের এখানকার বিড়ি বেশিরভাগই উত্তর ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে চলে যায়। কিন্তু এখন লকডাউন থাকায় বিড়ি পরিবহণের জন্য ব্যবহৃত ট্রাক চলাচলের অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে বিড়ি ব্যবসা চালু করা এখন সম্ভব নয়। ফলে বলাই যায়, লকডাউন না ওঠা পর্যন্ত বিড়ি শ্রমিকদের সুদিন ফেরা এখন প্রায় সম্ভব নয়। আরও কিছুদিন তাদের কষ্ট করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here