ডেস্ক: দীর্ঘ ৭৫ বছর পর নোবেলের ইতিহাসে চাঞ্চল্যকর ঘটনা। যৌন কেলেঙ্কারি ও আর্থিক দুর্নীতি নিয়ে এই বছরের মতো সাহিত্য নোবেল পুরস্কার না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার সুইডিস অ্যাকাডেমির ছয় জন সদস্য এই মর্মে পদত্যাগ করেন তাঁরা। সূত্রের খবর,অ্যাকাডেমির নির্ভরযোগ্যতা নিয়ে বিশ্বজুড়ে প্রশ্ন চিহ্নের মুখে পড়ায় এই সিদ্ধান্তে যেতে বাধ্য হয়েছেন তাঁরা। বলা যেতে পারে দীর্ঘ সাত দশক ধরে চলে আসা এই পুরস্কারের ক্ষেত্রে এটা একটা বড় সিদ্ধান্ত বলা যেতে পারে।

তবে এর আগেও ১৯৪৩ সালে যখন বিশ্বজুড়ে অস্থির পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় তখন নোবেল পুরস্কার দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। ঘটনার শুরু বেশ কয়েকদিন আগে। নোবেল কমিটির তরফ থেকে ২০১৯ সালের সাহিত্য নোবেলের জন্য ২ জনের নাম প্রস্তাব করা হয়। কিন্তু সেই ব্যাক্তি যৌন কেচ্ছায় জড়িয়ে পরার অভিযোগ ওঠে। এমনকি অ্যাকাডেমির আনুষ্ঠানিক ঘোষনার পর তিনি বেশ কিছু বিজয়ীর নাম প্রকাশ্যে জানিয়ে দেন। অভিযোগকারী হলেন লেখিকা ক্যাটারিনা ফ্রস্টটনসনের স্বামী জিন–ক্লদ আর্নল্ট। তিনি আবার অ্যাকাডেমির একজন সক্রিয় সদস্য। যিনি নিজেও একজন আলোকচিত্রি বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু ক্যাটরিনা তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ নস্যাৎ করে দেন। কিন্তু এই বছরে সাহিত্য বিভাগে দেওয়া হচ্ছে না নোবেল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here