news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাসের থাবা পর্যটনেও। গোটা বিশ্ব তথা ভারতে ভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে, তার সঙ্গে বাড়ছে আতঙ্কও। বিভিন্ন রাজ্য সরকার একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে এই করোনাভাইরাসকে আটকানোর জন্য। পিছিয়ে থাকল না বাঙালি তথা ভ্রমণপিপাসুদের অত্যন্ত পছন্দের জায়গা সিকিমও। সেখানের রাজ্য সরকার ঘোষণা করেছে যে আপাতত পর্যটকদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে উত্তর সিকিম। এই ঘোষণায় স্পষ্ট, সিকিম সরকার কোনওরকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না।

উল্লেখযোগ্য ব্যাপার, সিকিমে আজকের দিন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়নি। সেই কারণেই নতুন করে যাতে এই ভাইরাস পর্যটকদের থেকে ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্যই উত্তর সিকিম বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে, আজ অর্থাৎ ১৩ মার্চ থেকেই কার্যকর হচ্ছে এই নিয়ম। গত ৫ মার্চ থেকে বিদেশি পর্যটকদের ঘোরার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সিকিম সরকার। এই মুহূর্তে বন্ধ রয়েছে নাথুলা পাস, লাচুং, লাচেনও। এবার দেশের অন্যান্য রাজ্যের পর্যটকদের জন্যও বন্ধ করে দেওয়া হল উত্তর সিকিম। জানানো হয়েছে, পরবর্তী নির্দেশিকা জারি না হওয়া পর্যন্ত উত্তর সিকিমে কেউ বেড়াতে যেতে পারবে না।

তবে শুধু পর্যটকই নন, বিধিনিষেধ জারি হয়েছে রাজ্যের শ্রমিকদের ক্ষেত্রেও। তবে লাচুং জুমসা ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা জারি রাখার কথা ঘোষণা করলেও লাচেন জুমসা কোনো তারিখ ঘোষণা করেনি। প্রসঙ্গত, ‘জুমসা’ হল সিকিম সরকার স্বীকৃত স্থানীয় নিজস্ব সরকার বা ‘লোকাল সেলফ গভর্নমেন্ট’। জুমসা যা সিদ্ধান্ত নেবে সিকিম সরকার তাই মানতে বাধ্য।

এইভাবে পর্যটকদের জন্য সিকিমে ভ্রমণ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তে রাজ্যের পর্যটন শিল্প যে ক্ষতিগ্রস্ত হবে তাতে কোনও সন্দেহ নেই। তবে সবকিছুর ঊর্ধ্বে রাজ্যের বাসিন্দাদের সুরক্ষার দিকেই নজর দিচ্ছে সিকিম সরকার। আগামী এপ্রিলে পশ্চিম সিকিমের সোরেং চাখুংয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল রেড পাণ্ডা ট্যুরিজম কার্নিভাল ২০২০। ইতিমধ্যেই সেই অনুষ্ঠান স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে একাধিক বৌদ্ধ মঠও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here