kolkata news bengali

Highlights

  • জনসংযোগের লক্ষ্যেই এই কর্মকাণ্ড বলে দাবি রাজনৈতিক মহলের একাংশের
  • মন্ত্রীকে দেখা গিয়েছে আসরে মালা পরে হরিনামে তাল মেলাতে
  • সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন হরিনামের আসরেই দেখা মিলছে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের

নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: মন্ত্রীর কপালে টানা তিলক। গলায় গাঁদা ফুলের মালা। করছেন হরিনাম সংকীর্তন। আর সেখানেই ছড়াচ্ছেন বাতাসা। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীর এই ছবি ভাইরাল নেট দুনিয়ায়। নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে দাপুটে নেতা হিসেবেই পরিচিত রবীন্দ্রনাথ। এজন্য অবশ্য বেশ কয়েকবার বিতর্কেও জড়াতে হয়েছে তাঁকে। তারপরেই অন্যভাবে দেখা গেল মন্ত্রীকে। একেবারে শান্ত ভক্ত হিসেবে।

হরিনাম সংকীর্তনের আসরে চলতি সপ্তাহে বারবার দেখা গিয়েছে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে। জনসংযোগের লক্ষ্যেই এই কর্মকাণ্ড বলে দাবি রাজনৈতিক মহলের একাংশের। যদিও স্পষ্ট ভাবে মন্ত্রী জানিয়েছেন, সংকীর্তন শুনতে ভালো লাগে তাই আসা। শুক্রবার নাটাবাড়ি বিধানসভার ১ নম্বর ব্লকের দেওয়ানহাট এলাকার গারো পাড়ার এক হরিনাম আসরে রাত্রে মন্ত্রীকে দেখা গিয়েছে। আসরে মালা পরে হরিনামে তাল মেলাচ্ছেন তিনি।ছড়াচ্ছেন বাতাসা।

বিরোধীদের দাবি, বিজেপির মতো হিন্দু সম্প্রদায়কে কাছে টানতেই এই উদ্যোগ। টিম পিকের পরামর্শ মতো রাজ্যে শুরু হয়েছে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচী। চলছে প্রচার। দলের নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, জনসংযোগে জোর দিতে। তারপর থেকেই বারবার উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রীকে দেখা গিয়েছে বিভিন্ন আসরে। প্রসঙ্গত, ওই লোকসভা কেন্দ্রে পরাজয় হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। খোদ মন্ত্রীর বিধানসভা এলাকাতেই সব থেকে পিছিয়ে ছিল তৃণমূল। লোকসভা নির্বাচনে হারের পর তৃণমূল কংগ্রেস বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানোর মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে। মন্ত্রীও সেই অনুযায়ীই মুখ ফিরিয়ে নেওয়া জনগণকে কাছে টানতে উদ্যোগী হয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

ভাবমূর্তি ফেরাতেই এই কাজ করছেন বলে দাবি বিরোধীদের। অতীতে বারবার বিতর্কে জড়াতে হয়েছে মন্ত্রীকে। কখনও বিজেপি কর্মীকে চড়। আবার কখনও বা ব্যাঙ্কে গিয়ে কর্মীকে ধমক। জনমানসে দল বিরুদ্ধ মনোভাব গড়ে উঠছে মনে করে জোড়াফুল শিবিরেই অসন্তোষ দেখা গিয়েছিল। তারপরেই সম্পূর্ণ অন্য ভূমিকায় দেখা গেল মন্ত্রীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here