kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সুপ্রিম রায়ে দীর্ঘ টানাপোড়েন কাটিয়ে রামমন্দির তৈরির ছাড়পত্র পেয়েছে রামলালা। অন্যদিকে ৫ একর জমি মুসলিমদের দেওয়ার কথা জানিয়েছে শীর্ষ আদালত। তবে সেটা দিতে হবে অযোধ্যার মধ্যেই। আদালতের নির্দেশ হাতে আসার পর মুসলিমদের মসজিদ গড়ার জন্য ৫ একর জমি খোঁজা শুরু করে দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। এরই মাঝে একটু অন্যসুর শোনা গেল মামলার অন্যতম প্রধান পক্ষ ইকবাল আনসারির গলায়। তাঁর দাবি, যে কোনও জায়গায় নয়, অযোধ্যার ওই ৬৭ একরের মধ্যেই মসজিদ গড়ার জন্য জমি দেওয়া হোক তাঁদের।

জানা গিয়েছে, অযোধ্যার কোনও গুরুত্বপূর্ণ ও আকর্ষণীয় জায়গায় জমি খোঁজার জন্য ইতিমধ্যেই নির্দেশ দিয়ে দিয়েছে যোগী সরকার। কিন্তু সরকারের দেওয়া সেই জমি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মুসলিমরা। এই প্রসঙ্গে ইকবাল আনসারি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ‘যদি আমাদের জমি দিতে হয় সেক্ষেত্রে ওই ৬৭ একরের মধ্যেই কোনও একটি জয়গা দেখে আমাদের জমি দিতে হবে। না হলে আমরা এই প্রস্তাব মানব না। অনেকে বলছে, চোদ্দ ক্রোশ দূরে গিয়ে মন্দির গড়ার জন্য এটা কোনওভাবেই ঠিক নয়।’ ইকবালের এই বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছে, একাধিক মুসলিম পক্ষ।

একই কথা শোনা গেল অযোধ্যা মামলার আর এক পক্ষ হাজি মেহবুবের গলায়। সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি বলেন, ‘আমরা এই ললিপপ কোনও ভাবেই নেব না। আমাদের স্পষ্ট করে দিতে হবে, তারা আমাদের ঠিক কোথায় জমি দিতে হবে।’ এই প্রসঙ্গে অযোধ্যার এক বাসিন্দা বলেন, ‘মুসলিমরা জমি কিনে মসজিদ গড়তে পারে। এর জন্য সরকারের উপর আমাদের নির্ভর করতে হবে না। সরকার যদি আমাদের সান্তনা দিতে চায় তবে ওই ৬৭ একরের মধ্যেই আমাদের জমি দেওয়া হোক। কারণ, ওই এলাকায় অঠেরোশো শতকের সুফি সাধক কাজি কুদওহার দরগা-সহ অনেকের কবরও রয়েছে।’ সব মিলিয়ে রাম মন্দিরের নিশ্চয়তার সঙ্গে সঙ্গে দ্বন্দ্ব বাঁধল মুসলিমদের ৫ একর জমি নিয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here