international news

Highlights

  • ৪০ বছর আগে একটি উপন্যাসে ডিন কুনটজ নামে এক লেখক উল্লেখ করেছিলেন নোভেল করোনা ভাইরাসের
  • সেই ভাইরাসের নাম তিনি উহান-৪০০
  • ডার্ক থ্রিলার ‘দ্য আইজ অব ডার্কনেস’ শীর্ষক উপন্যাসটিতে করোনা উল্লেখ করেছিলেন লেখক

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নোভেল করোনা ভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত চিনের উহান প্রদেশ। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ১৭০০ মানুষ। তবে এরকম কিছু হতে চলেছে তা নাকি আগেই টের পেয়েছিলেন এক লেখক। সেই কথা নিজের লেখা বইতেও উল্লেখ করে গিয়েছিলেন তিনি। প্রায় ৪০ বছর আগে একটি উপন্যাসে ডিন কুনটজ নামে এক লেখক উল্লেখ করেছিলেন নোভেল করোনা ভাইরাসের। তবে সেই ভাইরাসের নাম তিনি উহান-৪০০ দিয়েছিলেন।

ডার্ক থ্রিলার ‘দ্য আইজ অব ডার্কনেস’ শীর্ষক উপন্যাসটিতে ঔপন্যাসিক ডিন কুনটজ লিখেছিলেন, উহান-৪০০ নামে এই ভাইরাস অস্ত্র হিসেবে তৈরি করা হয়েছে ল্যাবরেটরিতে। এই উপন্যাসটি প্রকাশিত হয় ১৯৮১ সালে। যা আজ থেকে প্রায় ৪০ বছর আগে। সম্প্রতি সেই বইটির ছবি দিয়ে ও সেই লাইন গুলিকে লাল কালিতে দাগিয়ে সেই ছবি পোস্ট করেন ড্যারেন অব প্লাইমাউথ নামে এক ব্যক্তি। তিনি লেখেন, একটা অদ্ভুত দুনিয়ায় বাস করছি আমরা।

ড্যারেনের এই পোস্টটি মূহুর্তের মধ্য়ে ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। একের পর এক টুইট করতে থাকেন নেটিজেনরা। কেউ লেখেন, আমার মনে আছে এই বইটির কথা, আমি নিজেও এটি পড়েছি। কেউ আবার লেখেন, অবিশ্বাস্য কাকতালীয় ঘটনা এটি। এ প্রসঙ্গে একটি টুইট করেন কংগ্রেস নেতা মণীশ তেওয়ারিও। তিনি প্রশ্ন করেন, চিন কী তাহলে বায়োলজিক্যাল অস্ত্র হিসেবে তৈরি করেছে করোনা ভাইরাসকে যা এই বইটিতে উহান-৪০০ নামে উল্লেখ করা হয়েছে?

নোভেল করোনার ত্রাসে ত্রস্ত গোটা বিশ্ব। চিন থেকে এই মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে মোট ২৫ টি দেশে। এই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে মার্কিন সরকারি সংস্থা ‘হেলথ অ্যান্ড হিউম্যান সার্ভিস অ্যান্ড রিজেনারন (HHS)’ মনোক্লোনাল অ্যান্ডিবডি তৈরি করছে বলে খবর। গবেষকরা জানিয়েছিলেন, এই অ্যান্টিবডি যে কোনও ভাইরাল জ্বর, ইনফ্লুয়েঞ্জার মোকাবিলা করতে সক্ষম। তবে সম্প্রতি চিন জানিয়েছে, তাদের পর্যবেক্ষণে ধরা পড়েছে করোনার সংক্রমণ আগের থেকে অনেকটাই কম চিনে। এই খবর কিছুটা হলে স্বস্তি দিয়েছে বিশ্ববাসীকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here