kolkata news

Highlights

  • গ্রামীণ মহিলাদের ইন্টারনেট ব্যবহার শেখাতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন এক মহিলা
  • গ্রামবাসীদের দাবি, এনআরসি নিয়ে সার্ভে করেছিলেন ওই মহিলা
  • ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মল্লারপুর থানার গৌরবাজার গ্রামে

নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম: গ্রামীণ মহিলাদের ইন্টারনেট ব্যবহার শেখাতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন এক মহিলা। ভাঙচুর করা হল তাঁর বাড়ি। গ্রামবাসীদের দাবি, এনআরসি নিয়ে সার্ভে করেছিলেন ওই মহিলা। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মল্লারপুর থানার গৌরবাজার গ্রামে। মহিলা ও তার পরিবারকে উত্তেজিত গ্রামবাসীদের হাত থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশি টহল শুরু হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনার জেরে গৌরবাজার গ্রামের চুমকি খাতুন নামে এক মহিলা ও তার পরিবার আক্রান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি আরও অভিযোগ, তাদের ঘরবাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে উত্তেজিত জনতা। চুমকি খাতুন তাঁর গ্রামের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মোবাইল ব্যবহার সম্পর্কে মহিলাদের সচেতন করছিলেন বলে দাবি। অন্যদিকে, গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ওই মহিলা প্রতিটি পরিবারের কাছ থেকে তাদের বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করেছিলেন। মহিলাদের ছবিও তুলে রাখছিলেন মোবাইলে। বিভিন্ন ভাতা পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন। কয়েকদিন ধরে বাড়ি বাড়ি গিয়ে চুমকি খাতুনের এই কার্যকলাপ চলছিল।

যদিও, ওই মহিলা সংশ্লিষ্ট কাজ সরকারি বা কোনও এনজিও সংস্থার হয়ে করছিলেন কিনা, সেটা পরিষ্কার নয়। গ্রামবাসীদের সন্দেহ হয়, ওই মহিলা এনআরসি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছিলেন। সেই আতঙ্কে তারা মঙ্গলবার রাতে চড়াও হয় তাঁর বাড়িতে। ঘটনার খবর পেয়ে মল্লারপুর থানা পুলিশ আসে। আক্রান্ত পরিবারকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় পুলিশ। বুধবার ফের গ্রামবাসীরা ওই মহিলার বাড়িতে চড়াও হয় ভাঙচুর চালায় এবং আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘটনাস্থলে মল্লারপুর থানার পুলিশ এলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এ বিষয়ে বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, ‘মহিলা ও তার পরিবারকে উদ্ধার করা হয়েছে এবং ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here