টালিগঞ্জ কাণ্ডের জের, সরিয়ে দেওয়া হল থানার ওসিকে, চরম অসন্তুষ্ট পুলিশ কমিশনার

0

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আলিপুরের পুনরাবৃত্তি টালিগঞ্জে। থানায় ঢুকে পুলিশি নিগ্রহের ঘটনায় চরম অসন্তুষ্ট কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। তবে আরও বেশি ক্ষুব্ধ হয়েছেন এই ঘটনায় থানার ওসির ভূমিকায়। ওসি অনুপ কুমার ঘোষকে শোকজ করা হয়েছিল তিন দিন আগেই। অবশেষে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হল বুধবার। আজ দুপুরে একটি নির্দেশিকা জারি করে এ কথা ঘোষণা করেন লালবাজার। অনুপ কুমার ঘোষের বদলে টালিগঞ্জ থানার দায়িত্বে আনা হয়েছে দক্ষিণ বন্দর থানার ওসি সরোজ প্রহরাজকে। টালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিকের পদ থেকে অনুপবাবুকে বদলি করে পাঠানো হল লালবাজারের গোয়েন্দা দফতরে। আগামী চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে নতুন থানার দায়িত্ব নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দুই আধিকারিককে। বুধবার দুপুরেই বদলির নির্দেশিকা হাতে পেয়েছেন টালিগঞ্জ থানার ওসি অনুপ কুমার ঘোষ।

গত রবিবার রবীন্দ্র সরোবর এলাকায় একটি সিনেমা হলের সামনে বিশৃঙ্খলা করার অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে আসে টালিগঞ্জ থানার পুলিশ। এর পরই তাঁদের ছাড়ার দাবিতে টালিগঞ্জ থানার সামনে বিক্ষোভ দেখায় চেতলার ১৭নং বস্তির লোকজন। ধৃতকে অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা। তবে এই বিক্ষোভ দ্রুত পৌঁছে যায় হাতাহাতি এবং নিগ্রহের ঘটনায়। অভিযোগ থানার ভিতরে ঢুকে পুলিশকর্মীদের উপর চড়াও হন ওই বস্তির বাসিন্দারা। কয়েকজন পুলিশ কর্মীর গায়ে হাত তোলেন মহিলারাও। ধাক্কাধাক্কিতে ছিঁড়ে যায় এক পুলিশকর্মীর উর্দি। রক্তক্ষরণ হয় পরিস্থিতি মোকাবিলায় এগিয়ে আসা অপর পুলিশ কর্মীর। তবে একদিন কেটে গেলেও সোমবারেও এই ঘটনার কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জানাননি টালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক। থানার ভেতরে এত বড় পুলিশি নিগ্রহের মতো নক্কারজনক ঘটনা ঘটে গেলেও কেন তিনি লালবাজারের নজরে বিষয়টি আনেননি বা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানোর প্রয়োজন মনে করেননি তা নিয়ে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ হন কলকাতা কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা।

এত বড় একটা ঘটনা ঘটে গেলেও কেন দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে এত সময় লাগল, কেনও ঘটনার পরেই পুলিশ স্বত:প্রণদিত হয়ে মামলা রুজু করে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করলো না, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে লালবাজারের অন্দরে। গোটা ঘটনায় জবাব চেয়ে ওসিকে শোকজ নোটিশ পাঠান পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। তবে সেই শো কজ নোটিসের তিন দিনের মাথায় ওসির ওপর নেমে এল শাস্তির খাঁড়া। বুধবার এক নির্দেশিকা জারি করে লালবাজারের তরফে জানানো হয়, টালিগঞ্জ থানা থেকে ওসি অনুপ কুমার ঘোষকে সরিয়ে পাঠানো হল লালবাজারের গোয়েন্দা দফতরের। তাঁর জায়গায় আনা হল দক্ষিণ বন্দর থানার ওসি সরোজ প্রহরাজকে। পাশাপাশি এই নির্দেশিকায় বদলি করা হয়েছে কলকাতার লেদার কমপ্লেক্স থানার অ্যাডিশনাল ওসিকেও। তাঁকে পাঠানো হয়েছে দক্ষিণ বন্দর থানায়। গত রবিবার কলকাতার লেদার কমপ্লেক্স থানা এলাকায় একটি চামড়ার কারখানায় ভেতর থেকে ওই কারখানার ম্যানেজারের মৃতদেহ মেলে। সেই ঘটনায় যথেষ্ট শোরগোল পড়ে যায় শহর কলকাতায়। এই ঘটনার পর ওই এলাকায় আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে লালবাজারের অন্দরে। তার জেরেই অ্যাডিশনাল ওসিকে সরিয়ে দেওয়া হল বলে মনে করছেন অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here