মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থামিয়ে দেওয়া যাবে। তার জন্য প্রয়োজন কোনও মানুষের প্রাণ উৎসর্গ করা। আর তাহলেই সব ঠিক হয়ে যাবে। এই কুসংস্কারে বিশ্বাস করেই ভগবানের সামনে এক ভক্তের বলি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ওড়িশার এক পূজারীর বিরুদ্ধে। জানা যাচ্ছে, কটকের এক মন্দিরের ওই পূজারী নাকি স্থানীয় এক ব্যক্তির গলা কেটে হত্যা করেছে ভগবানকে সন্তুষ্ট করতে। এই কাজ করলেই করোনার সংক্রমণ থেমে যাবে বলে সেই বিশ্বাস করেছিল।

বুধবার গভীর রাতে কটকের নরসিংপুর থানার বান্ধাহুদায় এই গায়ে কাঁটা দেওয়া ঘটনাটি ঘটেছে। অভিযুক্ত পূজারীর নাম সানসারি ওঝা। সে বন্ধা মা বুধা ব্রহ্মাণী দেবী মন্দিরের পূজারী। এই অপরাধ করার পর সে অবশ্য নিজেই পুলিশের কাছে অপরাধ কবুল করে আত্মসমর্পণ করে। এই ঘটনা যেই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে তার নাম সরোজ কুমার প্রধান। অভিযুক্ত নিজেই জানিয়েছে, নরবলি দেওয়া নিয়ে সরোজ এবং তার মধ্যে কিছু তর্কাতর্কি হয়েছিল। সেই বচসা ক্রমশ বড় আকার নিতেই একটি ধারালো অস্ত্র দিয়ে সরোজের গলায় সে আঘাত হানে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এরপর সেই অস্ত্র নিয়েই ধড় থেকে শরীর আলাদা করে দেয়।

জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন পূজারী জানায়, সে ভগবানের কাছে থেকে ‘স্বপ্নাদেশ’ পেয়েছিল। সেখানে তাকে বলা হয়েছিল, কোনও মানুষের প্রাণ উৎসর্গ করা হলে তবেই করোনা ভাইরাস ছড়ানো বন্ধ হবে। ইতিমধ্যেই পুলিশ খুনের অস্ত্রটি বাজেয়াপ্ত করেছে। মৃত ব্যক্তির দেহ পাঠানো হয়েছে ময়না তদন্তের জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here