ডেস্ক: সরকারের চাপের মুখে পড়ে বুধবারই কলাবিভাগে প্রবেশিকা পরীক্ষা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। এই রীতি তুলে নেওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ছাত্রছাত্রীরা বিক্ষোভ শুরু করে। গতকাল রাত থেকে এখনও অবধি ঘেরাও রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তিনি এদিন রাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে সরাসরি জানিয়েছেন যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বভার পরিচালনা করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে দিনে দিনে।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই কলাবিভাগে প্রবেশিকা পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ। সেখানে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বাংলা, ইংরেজি, তুলনামুলক সাহিত্য, রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও দর্শনবিভাগে স্নাতকস্তরে ভর্তির ক্ষেত্রে এবার প্রবেশিকা পরীক্ষা চালু করা হবে। কিন্তু বুধবার কর্মসমিতির বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পুনরায় সিদ্ধান্ত নেয় কলা বিভাগের ওই ছ’টি বিষয়ের প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে হবে না ছাত্রছাত্রীদের। তাদের উচ্চমাধ্যমিক বা সমতুল্য কোনও পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতেই ভর্তির মেধাতালিকা প্রকাশ করবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশিকা প্রত্যাহারের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার পর থেকেই ক্যাম্পাসে জুড়ে বিক্ষোভ শুরু করে পড়ুয়ারা। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারকে ঘেরাও করেন ছাত্রছাত্রীরা। তাদের সাফ কথা, সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত এই আন্দোলন চলবে। আজ দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে তারা হাজির হয়ে আন্দোলনে নামবে। তারা আরও জানিয়েছে যে, তাদের এই জমায়েতে উপস্থিত থাকবেন প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীরাও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here