নিজস্ব প্রতিবেদক, চুঁচুড়া: ভাড়া দিয়ে বচসার জেরে ভাড়াটিয়ার হাতে মার খেলেন বাড়ির মালিক। ঘটনাটি ঘটেছে হুগলি জেলার চুঁচুড়া থানার মোগলটুলি জোড়াঘাটে। ৬৮ বছরের দীপালি মিত্র তার বাড়ির দোতলাটি ভাড়া দিয়েছিলেন চুঁচুড়া আদালতের মুহুরী সলিল দত্তকে। এক বছরের এগ্রিমেন্টে তিনি ভাড়া দিয়ে ছিলেন সলিলবাবুকে, যার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কয়েক মাস আগেই। কিন্তু সলিলবাবু ঘর ছাড়ার নাম গন্ধটিও করেননি। উল্টে দীপালি দেবী তাকে ঘর ছাড়তে বললে তিনি তাকে আদালতে টেনে নিয়ে যাবার হুমকি দিতে থাকেন। রবিবার সন্ধ্যায় ঘর তাদের বিবাদ চরম আকার ধারন করে।

ওই সময় দীপালি সলিলবাবুকে ঘর ছাড়ার কথা বলতেই মিতালি দেবীকে সলিলগবাবু ও তার ভাগ্নী দুই জন মিলে বেধড়ক মারধর করেন। প্রতিবেশিরা দেখতে পেয়ে ছুটে এসে উদ্ধার করেন দীপালি দেবীকে। আহত বৃদ্ধা দিপালীদেবীকে তারাই নিয়ে যান চুঁচুড়া হাসপাতালে, সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর সলিলবাবুর বিরুদ্ধে চুঁচুড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। দীপালি দেবীর একমাত্র ছেলে চিকিৎসক। থাকেন মুম্বইতে। চুঁচুড়ায় দীপালিদেবী একাই থাকেন বলেই ভাড়া দিয়েছিলেন। অথচ সেই ভাড়াটের হাতেই যে মার খেতে হবে তা তিনি কল্পনাও করতে পারেননি। পাড়ার লোকের অভিযোগ, সলিলবাবু আদালতের লোক বলেই ওই বৃদ্ধাকে আদালতের ভয় দেখিয়ে বাড়ি দখল করতে চাইছেন, তা তারা হতে দেবেন না।