ডেস্ক: শহরের বাসের মধ্যে হস্তমৈথুন কান্ডের রেশ এখনও কাটেনি, এরইমাঝে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল মালদা জেলায়। কলকাতার ধাঁচে মহিলাদের লক্ষ্য করে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির অভিযোগ উঠল এক প্রৌঢ় ব্যক্তির বিরুদ্ধে। দিনের পর দিন এই ঘটনা চলার পর, অবশেষে প্রতিবাদে সরব হয় এক কলেজছাত্রী। ঘটনার অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে গণধোলাই দেয় উত্তেজিত জনতা। পরে পুরো ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ঘটনাটি ঘটেছে মালদা শহরের প্রাণকেন্দ্র বৃন্দাবনী ময়দান এলাকায়। প্রতিদিনই প্রচুর মানুষ এখানে সান্ধ্যভ্রমণ করেন। মালদা শহরের ওই কলেজছাত্রীর অভিযোগ, গত বেশ কয়েকদিন ধরেই ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধ শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াচ্ছে বিশেষ করে বৃন্দাবনি ময়দান, মালদা শুভংকর শিশু উদ্যান সহ বিভিন্ন জায়গায়। সেখানে যৌন প্রদর্শন সহ বিভিন্ন অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করছিলো ঐ পৌঢ়। এরপর স্থানীয় লোকজন ওই ব্যক্তিকে পাকড়াও করে। চলে উত্তম-মধ্যম গণধোলাই প্রকাশ্যে কান ধরে উঠবস। পুলিশ আসার আগেই অভিযুক্ত ব্যক্তি কোন রকমে সেখান থেকে পালিয়ে বাঁচে ওই ষাটোর্ধ্ব পৌড়।

এই ভিডিও দেখার পর ঘটনার তীব্র নিন্দায় সরব হয়েছেন বিশিষ্টজনেরা। এটা একটা মানসিক অসুখ। মনে করেন জেলার মনোরোগ বিশেষজ্ঞ পর্ণাশ্রী গুপ্ত বলেন, এটা একটা মানসিক অসুখ, মানসিক রোগের ভাষায় এই অসুখে বলে যৌন প্রদর্শনী। এধরনের ব্যক্তির চিকিৎসা প্রয়োজন। সমস্ত ঘটনা সোশ্যাল সাইটে দেখে, সরব হয়েছেন মালদা মহিলা কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপিকা সমাজতত্ত্ববিদ কৃষ্ণ গুহ বলেন, এই ধরনের ঘটনাকে কেবল মানসিক অসুখ বা আইনি পদক্ষেপ দিয়ে হবে না। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে সামাজিক বয়কটের প্রয়োজন, তাহলেই হয়তো কিছুটা হলেও এই সমস্যার সমাধান হতে পারে।

সমস্ত ঘটনা জানতে পেয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন জেলা নারী ও শিশু কল্যান সমিতির চেয়ারম্যান চৈতালি ঘোষ সরকার। যদিও অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম-পরিচয় এখনো জানা যায়নি। সোশ্যাল সাইটে সমস্ত ঘটনা দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here