national news

Highlights

  • সেই ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকে এখনও পর্যন্ত বন্দি জম্মু কাশ্মীরের জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতৃত্ব
  • ওমর আবদুল্লা, ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিরা দ্রুত মুক্তি পান প্রার্থনা রাজনাথের
  • নতুন করে আবার কাশ্মীরের উন্নতি সাধনে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিক ওনারা

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সেই ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকে এখনও পর্যন্ত বন্দি জম্মু কাশ্মীরের জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতৃত্ব ওমর আবদুল্লা, ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিরা। প্রথমে গৃহবন্দি ও পরে জন নিরাপত্তা আইনে আটক করা হয়েছে তাঁদের। এহেন পরিস্থিতিতেই উপত্যকার নেতাদের প্রতি কিছুটা সদয় হয়ে উঠলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। ওমর আবদুল্লা, ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিরা যাতে দ্রুত মুক্তি পান এবং কাশ্মীরের উন্নয়নে ফের কেন্দ্রের সঙ্গে সহযোগিতা করেন তার জন্য প্রার্থনা করলেন তিনি।

শনিবার এক সাক্ষাৎকারে কাশ্মীর প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘কাশ্মীরে ধীরে ধীরে শান্তি ফিরছে। পরিস্থিতিও স্বাভাবিক হচ্ছে। এখন পরিস্থিতির দিকে নজর রেখে সেখানকার রাজনইতিক নেরতাদের মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করা হবে।’ পাশাপাশি এই দিন ধরে আবদুল্লা, মুফতিদের আটক করা রাখাকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে বিরোধীরা। প্রশ্ন উঠছে বাক স্বাধীনতা নিয়েও। এই বিষয়ে অবশ্য রাজনাথের স্পষ্ট জবাব, ‘কোনও রাজনৈতিক নেতার উপর কোনও অত্যাচার করেনি সরকার।’ তিনি আরও বলেন, ‘কাশ্মীরের স্বার্থেই সরকারকে কিছু পদক্ষেপ নিতে হয়েছে। এই সিদ্ধান্তকে সকলের তরফে স্বাগত জানানোই উচিত। এছাড়া কাশ্মীরে বন্দি থাকা নেতারা যাতে মুক্তি পান সে বিষয়ে আশা প্রকাশ করে রাজনাথের দাবি, ‘প্রার্থনা করছি ওনারা দ্রুত মুক্তি পান এবং নতুন করে আবার কাশ্মীরের উন্নতি সাধনে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিক।’

প্রসঙ্গত, ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করার পরই কাশ্মীরের জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতৃত্বকে গৃহবন্দি করে কেন্দ্রীয় সরকার। দীর্ঘদিন তাঁদের গৃহবন্দি করে রাখার পর সম্প্রতি জন নিরাপত্তা আইনে আটক করা হয়েছে ওমর আবদুল্লা, ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিদের। কারণ হিসাবে সরকারের তরফে জানানো হয়, সামনে কাশ্মীরে নির্বাচন। সেই সময়ে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিরুদ্ধে নতুন করে মাঠে নামতে পারেন ওই নেতারা। যার জেরেই সরকারের তরফে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here