মহানগর ডেস্ক: আন্তর্জাতিক নারী দিবসে বাংলার মেয়েদের ‘নিরাপত্তা’ ও ‘সুরক্ষার’ কথা তুলে ধরে বর্তমান তৃণমূল সরকারের জোর সমালোচনা করলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। পাশাপাশি যারা হাতরাসে গণধর্ষণ কাণ্ডের নিন্দা করেন, তাঁদের আরও একবার মনে করিয়ে দিলেন এই রাজ্যের পার্কস্ট্রিট, কামদুনির ঘটনা।

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, “৩৪বছরের বাম অপশাসন এবং গত দশ বছরে তৃণমূল জামানায় বাংলার নারীরা অত্যাচারিত হচ্ছে ক্রমশ। তৃণমূলের ‘এগিয়ে বাংলায়’ পিছিয়ে গেছেন নারীরা। বরং নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, এসিড এট্যাক, নারী পাচারে ‘এগিয়ে বাংলা’।” ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “বাংলার নারীরা যেভাবে অত্যাচারের শিকার হচ্ছে ক্রমশ, তা মোটেই তাদের জন্য ‘গর্ব’ নয়।

হাতরাস গণধর্ষণ কাণ্ডের রেশ টেনে লকেট বলেন, “হাতরাস নিয়ে যারা এত কথা বলে, তারা হয়তো ২০১২র পার্কস্ট্রিট, ২০১৩র কামদুনির ঘটনার কথা ভুলে গেছে! উল্টে কামদুনি কাণ্ডে যারা বিচার চাইতে গিয়েছিলেন, মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে ‘মাওবাদী’ তকমা শুনতে হয়েছিল তাঁদের।” সাংসদ হওয়ার পর গত সাত বছরের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে লকেট বলেন, “জলপাইগুড়ি, দিনাজপুর, বীরভূম থেকে শুরু করে একাধিক ‘ভয়াবহ’ ধর্ষণের ঘটনায় আমার গা শিউরে ওঠে আজও। মালদার আদিবাসী মহিলাকে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনার সাক্ষী থেকেছে গোটা বাংলা।”

‘বাংলার মেয়েকেই চাই’ স্লোগানকে কটাক্ষ করে লকেট বলেন, “বাংলার মেয়েরা সম্মান ফিরে পেতে চায়, আমরা অপমানের বদলা চাই।” এরপরেই নরেন্দ্র মোদির ভূয়সী প্রসংসা করে লকেট বলেন, “দেশের মহিলাদের সব সময় পাশে থেকেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর একাধিক প্রকল্পের মাধ্যমে আজ উপকৃত দেশের মহিলারা।”

তবে পরিসংখ্যান বলছে যে নারী নিরাপত্তা ও নারী সুরক্ষার বিচারে সবথেকে পিছিয়ে বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি। তথ্যের বিচারে মহিলাদের জন্য সবথেকে বিপজ্জনক রাজ্য রাজস্থান। পাশাপাশি হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, অসমের মতো রাজ্য গুলিতেও মহিলারা যথেষ্ট নিরাপদ নয়। অন্যদিকে মহিলাদের জন্য সবথেকে নিরাপদ শহর হিসাবে কলকাতাকে চিহ্নিত করেছে কেন্দ্রীয় সংস্থা ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব‍্যুরো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here