sachin news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ব্যাট হাতে দাপটের সঙ্গে বাইশ গজ মাতিয়েছেন ২৪ বছর। এবার কাঁচি হাতে ধীরে ধীরে নাপিত হয়ে উঠছেন শচীন তেন্ডুলকর। লকডাউনে মাস্টার ব্লাস্টারের হেয়ার স্টাইলিস্ট সত্তার আত্মপ্রকাশ ঘটছে।

কিছুদিন আগে শচীন নিজের চুল নিজে কেটেই ইনস্টাগ্রামে ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। এবার ছেলে অর্জুন তেন্ডুলকরের চুল কেটে দিলেন তিনি। এই কাজে তাঁকে সাহায্য করলেন কন্যা সারা। মেয়েকে সেলুন সহকারীর তকমা দিয়েছেন আধুনিক ক্রিকেটের ডন।

শচীন ছেলের চুল কাটার ভিডিও পোস্ট করে মজা করে ইনস্টাগ্রামে লিখলেন, “একজন বাবাকে সবই করতে হয়। সে ছেলেমেয়ের সঙ্গে খেলা থেকে জিম করা, এমনকী প্রয়োজনে চুল কেটে দেওয়া। দেখো অর্জুন হেয়ারকাটটা যেমনই হোক না কেন, তুমি সবসময় হ্যান্ডসামই থাকবে। আর আমার সেলুন সহকারী সারাকে অনেক ধন্যবাদ।”

এর আগে শচীন নিজের চুল কাটার ভিডিও পোস্ট করে বলেছিলেন, “স্কোয়ার কাট হোক বা হেয়ার কাট। সবসময় নতুন কিছু করতে ভাললাগে আমার।”

লকডাউনে দেশব্যাপী সেলুন আর পার্লার বন্ধ। ফলে চুল-দাড়ি কাটার জন্য ঘরের বাইরে পা রাখা সম্ভব নয়। ফলে সাধারণ থেকে সেলেব, অনেকেই কাঁচি হাতে কেরামতি দেখাচ্ছেন। দিন দুয়েক আগে শচীনের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন শোয়েব আখতার। ৪৪ বছরের প্রাক্তন পাক স্পিডস্টার জানিয়ে দিলেন যে, তাঁর একসময়ের এক নম্বর প্রতিদ্বন্দ্বীর ধারেকাছে তিনি কাউকে রাখবেন না। বিরাট কোহলির সঙ্গে শচীনের কোনও তুলনাই হয় না বলেও মত।

আখতার হ্যালো লাইভ সেশনে এসেছিলেন। সেখানে তিনি জানালেন যে, ২০০৩ বিশ্বকাপে তিনি শচীনের সেঞ্চুরি চেয়েছিলেন। মাস্টার ব্লাস্টারকে দুই রানের জন্য শতরান মাঠে রেখে আসতে দেখে তিনি দুঃখ পেয়েছিলেন। আখতার বলছেন, “শচীনকে ৯৮ রানে আউট হতে দেখে দুঃখ পেয়েছিলাম আমি। ওটা ওর স্পেশাল ইনিংস ছিল। ওর সেঞ্চুরি করা উচিত ছিল। আমি চেয়েও ছিলাম। আর ওই বাউন্সারটায় ভেবেছিলাম আগের মতোই ছয় মারবে শচীন।” আখতার ওই ম্যাচে ৭২ রান হজম করেছিলেন নিজের কোটার ওভার করে। আর শচীনের উইকেটটাও তিনিই নেন।

আখতার শচীনের আরও প্রশংসা করেছেন। তিনি বলছেন, “শচীন ক্রিকেটের সবচেয়ে কঠিন যুগে ব্যাট করেছে। ও যদি এখন খেলত, তাহলে ১ লক্ষ ৩০ হাজারের ওপর রান করত। ফলে শচীনের সঙ্গে কোহলির তুলনায় মানে হয় না।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here