farmer protest

মহানগর ডেস্ক: ২৬শে নভেম্বর ২০২০, কেন্দ্রের নয়া কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে ‘দিল্লি চলো’ ডাক দিয়েছিলেন কৃষকরা। ফসলের নুন্যতম সহায়ক মূল্য সুনিশ্চিত করতে লাখ লাখ কৃষক সেদিন শাসকের চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করে, দিল্লির হাড় কাঁপানো ঠান্ডায় জলকামানের তোয়াক্কা না করে, দুর্ভেদ্য প্রাচীরের ন্যায় পুলিশি ব্যারিকেড ভেদ করে, প্রায় মাস ছয়েকের খাদ্য সংস্থান নিয়ে দিল্লির উদ্দেশে পা বাড়িয়েছিলেন। দিল্লির সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলিতে কনকনে ঠান্ডার মধ্যেই অস্থায়ী তাঁবু খাটিয়ে, খড়ের বিছানা পেতে কিংবা ট্রাক্টারের খোঁদলেই দাঁতে দাঁত চেপে একশো দিন কাটিয়ে দিলেন কৃষকেরা। ৬ মার্চ, চোয়াল শক্ত করে লড়াইয়ের একশো দিন।  প্রতিবাদের, প্রতিরোধের, প্রতিস্পর্ধার একশো দিন।

কৃষক আন্দোলনের শততম দিনটিকে ‘কালা দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কৃষকেরা। সেই কারণে আজ বেলা ১১টা থেকে বিকাল তিনটে পর্যন্ত কুন্ডলি-মানেসর-পালওয়াল জাতীয় সড়ক বন্ধ করে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কৃষকরা।  কৃষক নেতা ধীরাজ সিংয়ের মতে, ‘আজ একশতম দিনটিকে স্মরণ করে রাখতে আমরা শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ পাশাপাশি তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘ সরকার কৃষি আইন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।’

অন্যদিকে, সাময়িক ছন্দপতন কাটিয়ে ফের শক্তি বৃদ্ধি করতে শুরু করেছে কৃষক আন্দোলন। কংক্রিটের দেওয়াল,কাঁটাতারের ব্যারিকেড, পুলিশি ধরপাকড়ের কারণে যে আন্দোলন প্রত্যাহার হওয়ার আশা করেছিল কেন্দ্র, সেই আন্দোলনই আরও বেশি পরিমান শক্তি ও প্রত্যয় নিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। ফের মাথা তুলে দাঁড়াতে শুরু করেছে টিকিরি, গাজীপুর, সিঙ্ঘু।

জেলায় জেলায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে মহাপঞ্চায়েত, আর সেখানেই উপচে পড়ছে কৃষকের ভিড়। জাত, ধর্ম, হিংসা ভুলে আন্দোলনে শামিল হচ্ছেন জাঠ, মুসলিম, দলিত,আদিবাসী সম্প্রদায়ের কৃষকরা। কৃষক আন্দোলনের হাত ধরেই ভারতবর্ষে রচিত হচ্ছে এক নতুন এক ইতিহাস। হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে তৈরি হচ্ছে ঐক্য, ক্রমেই ভেঙে যাচ্ছে বিভেদের প্রাচীর। দলে দলে আন্দোলনে যোগ দিচ্ছেন মহিলারা। ২০১৯ এর শাহীনবাগের পর রাজধানীর বুকে গত একশো দিন ধরে ফের এক বৃহত্তর গণআন্দোলনের সাক্ষী থাকল ভারতবর্ষ।

এদিকে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে আগেই কৃষক আন্দোলনের আঁচ সারা ভারতবর্ষে ছড়িয়ে দিতে এখন থেকেই শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। আগামী ১২ মার্চ বাংলায় শুরু হচ্ছে কৃষক মহাপঞ্চায়েত। আর সেই আন্দোলনের ঝাঁজ বাড়াতেই বঙ্গে আসছেন কিসান ইউনিয়নের নেতা রাকেশ টিকায়েত। বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র সরকার কৃষক স্বার্থের বিষয়ে ভাবেনা বলে একাধিকবার তোপ দেগেছেন কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত। নির্বাচনের প্রাক্কালে কৃষি আইন প্রত্যাহারে ‘অনড়’ টিকায়েতের বঙ্গ সফর গেরুয়া শিবিরের ‘ভীত’ কাঁপিয়ে দিতে পারে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here