এনআরসির তালিকায় নেই ১ লক্ষ গোর্খাদের নাম! সুপ্রিম কোর্টে ছুটছেন বিনয় তামাংরা

0
664
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: লোকসভা ভোটের আগে থেকেই এনআরসি-কে প্রচারের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ প্রায় যেখানেই যাচ্ছেন প্রতিদিনই বলছেন, গোটা দেশে লাগু হবে এনআরসি। তবে দেশের একমাত্র রাজ্য হিসেবে অসমে লাগু হওয়া এনআরসি চাপের মুখে ফেলে দিয়েছে খোদ বিজেপিকেই। কারণ চূড়ান্ত তালিকা বের হওয়ার পর দেখা যাচ্ছে, ১৯ লক্ষের মধ্যে প্রায় ১২ লক্ষ হিন্দুদের নামই নেই সেখানে। শুধু তাই নয়, পাহাড়ের উপজাতি প্রায় ১ লক্ষ গোর্খাদেরও নাম বাদ গেছে এনআরসি তালিকায়। যা ঘিরে তীব্র অসন্তোষ জন্ম নিয়েছে। এবার সরাসরি এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাঁটতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা।

এনআরসি তালিকায় ১ লক্ষ গোর্খাদের নাম বাদ পড়া নিয়ে আগেই সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে অবশ্য শাসক শিবির বিশেষ আমল দেয়নি। কিন্তু, গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারে আইনি লড়াইয়ে যাওয়ায় বেজায় অস্বস্তিতে রয়েছে পদ্ম শিবির। কেননা লোকসভা ভোটে পাহাড়ের আসনটিতে বিজেপি জেতার পরই পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবি মাথাচারা দিয়ে উঠেছে। এই অবস্থায় গোর্খাল্যান্ডের আবেগ জিইয়ে রেখে পাহাড়বাসীকে পাশে রাখতে চাইছে বিজেপি। কিন্তু বিজেপি পরিচালিত সরকারেই যখন গোর্খাদের ‘অনুপ্রবেশকারী’ হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে, তখন গোর্খল্যান্ডের দাবিও কতটা সফল হবে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

বিষয়টি নিয়ে খুব শিগগির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গেও বিনয় তামাংরা দেখা করার সময় চাইবেন বলে জানা গিয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট ছাড়াও ফরেনার্স ট্রাইবুনালেও যাওয়ার পথ খোলা রাখছেন তারা। গোটা ইস্যুতে ইতিমধ্যেই বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশে পেয়েছেন গোর্খারা। তৃণমূলের পাশাপাশি গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাও রাজ্যে এনআরসি বিরোধী প্রচারে নামবে বলে জানা গিয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here