মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা অতিমারীর জেরে বাজারের দর নিয়ে এমনিতেই নাভিশ্বাস উঠে যাওয়ার মতো অবস্থা সাধারণ মধ্য ও নিম্ন বিত্তের, তার মধ্যে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে আবার গত বছরের মতো পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির। গত বছর পেঁয়াজ মজুত কম থাকায় দর আকাশ ছুঁয়েছিল। এবছর তাই সরকার মজুত পেঁয়াজের পরিমাণ এক লক্ষ মেট্রিক টন করার লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল। এই পরিমাণটি ছিল গতবছরের দ্বিগুণ। কিন্তু বর্ষার আগে সরকার তার এজেন্সির মাধ্যমে মাত্র ৪৫ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ জোগার করতে সক্ষম হয়েছে। ফলে আবারও সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে পেঁয়াজের দরে চোখে জল আসতে চলেছে বলে মনে করছেন বাজার বিশেষজ্ঞরা।

উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রকের অধীন খাদ্য ও গণ সরবরাহ দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, গত বছর মজুত পেঁয়াজের পরিমাণ ছিল ৫৬ হাজার মেট্রিক টন। কিন্তু বর্ষার পর সেই মজুত ধরে রাখা সম্ভব হয়নি কারণ পুরোটাই পচে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল। চলতি বছরে ”এনএএফইডি মাত্র ৪৫ হাজার মেট্রিক টন সংগ্রহ করেছে এবং বর্ষা যত বাড়বে ততই মজুত পেঁয়াজ গুদাম জাত করে রাখার ক্ষেত্রে অসুবিধা তৈরি হবে। ফলে যা লক্ষমাত্রা স্থির করা হয়েছিল সেই পরিমাণ পেঁয়াজ মজুত করে রাখার সম্ভাবনা খুবই কম। জুলাই মাসের শেষে আরও ২০ থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ সংগ্রহ করা হবে”, বলে জানান আধিকারিক।

গত বছর এনএএফইডি (ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল কো–অপারেটিভ মার্কেটিং ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া) পেঁয়াজ উৎপাদনকারী রাজ্য যেমন, মহারাষ্ট্র, গুজরাত এবং মধ্যপ্রদেশ থেকে বাজার দরে পেঁয়াজ সংগ্রহ করেছিল। প্রবল বৃষ্টির কারণে নভেম্বর–ডিসেম্বর মাসে খরিফ শষ্যের ক্ষতি হওয়ায় পেঁয়াজের দর কোনও কোনও জায়গায় কেজি প্রতি ১৮০ টাকায় পৌঁছয়। সেই সময় সরকার মজুত পেঁয়াজ কিলো প্রতি ২৩ টাকা দরে বাজারে ছেড়ে দেয়। কিন্তু চাহিদার তুলনায় মজুত কম থাকার ফলে চলতি বছরে মজুতের লক্ষমাত্রা প্রায় দ্বিগুণ করা হয়।

সংবাদ মাধ্যমের পক্ষ থেকে এনএএফইডি ডিরেক্টর নানা সাহেব পাতিলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যে পেঁয়াজ মজুত করা হয় সেটি উৎপাদন হয় মূলত মার্চ–এপ্রিল মাসে। কিন্তু এবার কোভিড–১৯ এর জন্য সেই সময় শ্রমিকের অভাব, বাজার বন্ধ ইত্যাদি কারণে পেঁয়াজ সংগ্রহের কাজ ব্যহত হয়েছে। বর্ষা চলে এলে পেঁয়াজের গুণমান খারাপ হয়ে যায়। সেই পেঁয়াজ আর মজুত করার মতো অবস্থায় থাকে না। সেই কারণেই মজুত করার লক্ষমাত্রায় পৌঁছনোর সম্ভাবনা কমে এসেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here