ডেস্ক: জোট জট কাটিয়ে অবশেষে মহাজোট সাঙ্গ হল বিহারে। লালুপ্রসাদ যাদব চলতি লোকসভা নির্বাচন থেকে ব্রাত্য রইলেও তাঁর দল আরজেডি সর্বশক্তি দিয়েই ঝাঁপাচ্ছে বিহারে, তাও আবার রাহুল গান্ধীর কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে। ফলে অন্যান্য রাজ্যে বিরোধীদের মহাজোট দানা না বাঁধলেও বিহারে তা পূর্ণতা পেতে দেখা যাচ্ছে। এদিন সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যমে পূর্ব নির্ধারিত শর্ত অনুযায়ী কংগ্রেসকে ৯টি আসন ছেড়ে ভোট মহাজোটের কথা ঘোষণা করেন আরজেডি মুখপাত্র মনোজ কুমার ঝাঁ।

বিহারে ১১টি আসন থেকে কংগ্রেস লড়তে চাইলেও এতগুলি আসন কংগ্রেসকে ছাড়তে রাজি ছিল না আরজেডি। ফলে বিহারে আদৌ জোট সম্ভব হবে কিনা সেই নিয়ে বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন উঠে গিয়েছিল। তবে নীতীশ কুমারের জেডিইউ-র সঙ্গে বিজেপির জোটে সিলমোহর পড়ে যাওয়ায় চাপে পড়ে গিয়েছিল বাকি বিরোধী দলগুলি। এই নিয়ে বিগত কয়েকদিন ধরেই কয়েক দফা বৈঠকে বসে আরজেডি, কংগ্রেস ও আরএলএসপির মতো বিরোধী দলগুলি। শেষে কংগ্রেসের ১১টি আসনের দাবিকে দূরে ঠেলে ৯টি আসন ছেড়েই জোটের পথে হাঁটে আরজেডি। এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে জানানো হয়, বিহারের ৪০টি লোকসভা আসনের মধ্যে ২০টি আসনে লড়বে আরজেডি। কংগ্রেস লড়বে ৯টি আসনে।

এছাড়া উপেন্দ্র কুশওয়াহার আরএলএসপি লড়বে ৫টি আসনে। এছাড়া শরদ যাদবের দল ও আরেক শরিকদল হিন্দুস্থান আবাম মোর্চাকে তিনটি করে আসন দেওয়া হবে। আরজেডির কোটাতেই সিপিএইএমএল লড়বে একটি আসনে। লোকসভা নির্বাচন একেবারে ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলায় আসন সমীকরণ ঘোষণা করতে বেশি সময় নিতে চাইছে না বিরোধী দলগুলি। বলে রাখা ভালো, বিহারের জেডিইউ-র সঙ্গে বহুদিন আগেই আসন সমঝোতা ঘোষণা করে ফেলেছিল এনডিএ। ফলে ভোট যুদ্ধে জোট গঠনের খেলায় অনেকটা এগিয়েই শুরু করতে চলেছে তারা। পশ্চিমবঙ্গের মতোই বিহারেও সাত দফাতেই অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। ২৩ মে ঘোষণা হবে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here