ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে রণকৌশল সাজাচ্ছে দেশের সব রাজনৈতিক দলগুলি। কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে বিরোধীরা। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পর্যন্ত সকলেরই একটাই লক্ষ্য, নরেন্দ্র মোদী সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা। সেই লক্ষ্যমাত্রা রেখে একাধিকবার বিরোধীদের একজোট হতে দেখেছে দিল্লি। লোকসভা ভোট যদি ফাইনাল হয়, তবে এখন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোট রাজনৈতিক দলগুলির কাছে সেমিফাইনাল। আগামী ১১ ডিসেম্বর বিধানসভা ভোটের ফলাফল। আর তার আগেই ১০ ডিসেম্বর ফের একবার নিজেদের কৌশল বাতলে নিতে মহাবৈঠক করতে চলেছে বিরোধীরা।

সূত্রের খবর, দিল্লির কনস্টিটিউশন ক্লাবে এই বৈঠক হতে চলেছে। ১০ ডিসেম্বরের এই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ শরদ পাওয়ার, ফারুক আবদুল্লা প্রমুখ। জানা যাচ্ছে, এই বৈঠকের মূল উদ্যোক্তা অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। তিনিই বিরোধী জোটকে আরও বেশি মজবুত করতে এই বৈঠকের উদ্যোগ নিয়েছেন।

সংস্ত বিরোধী দলকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিপক্ষে সরব হতে আহ্বান জানিয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেডারেল ফ্রন্টের উদ্দেশ্যে দিল্লিতে একাধিকবার বৈঠকও করেছেন তিনি। সম্প্রতি চন্দ্রবাবু নাইডুর সঙ্গে রাহুল গান্ধীর সাক্ষাত নিয়েও সরগরম হয়েছিল দেশের রাজনৈতিক মহল। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে গাঁটছড়া থাকলেও তা থেকে বেরিয়ে এসে একেবারে উল্টো স্রোতে বয়ে কৌতুহল তৈরি করেছিলেন চন্দ্রবাবু নাইডু। বিজেপি সরকারকে ধরাশায়ী করতে বিরোধীরা যে কতটা বদ্ধপরিকর তার একটি বৃহৎ উদাহরণ এটি। সবমিলিয়ে এই মহাবৈঠক বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে যথেষ্টই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here