বারুইপুর হাসপাতালে আউট ডোরে চিকিৎসা পরিষেবা বন্ধ, হয়রানির শিকার রোগীরা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক, বারুইপুর: বুধবার সকাল ৯ টার পর থেকেই বারুইপুর মহকুমা হাসপাতাল ও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রোগীদের জন্য বহির্বিভাগ পরিষেবা বন্ধ রাখা হল। এর জেরে দুরদুরান্ত থেকে আসা রোগীদের চিকিৎসা না পেয়ে কার্যত হয়রান হতে হয়। রোগীদের চিকিৎসা করাতে এসে ফিরে যেতে হয়। হাসপাতালের তরফ থেকে শুধু মাত্র আপদকালিন জরুরী বিভাগে চিকিৎসক রাখা হয়। যদিও হাসপাতালের সুপার ডঃ অচিন্ত্য গায়েন জানিয়েছেন, প্রতীকী ধর্মঘট চলছে। পরিষেবা চালু আছে। আপদকালিন জরুরী বিভাগে পর্যাপ্ত চিকিৎসক দিয়ে পরিষেবা চালু রাখা হয়েছে। এদিন সকাল ৫ টা থেকেই বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালের ও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগীদের লাইন পড়ে যায়। রোগীরা ঘরের সামনে বসে অপেক্ষা করতে থাকে।

বারুইপুর মহকুমা হাসপাতাল ও সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ওপর নির্ভরশীল বারুইপুর সহ কুলতলি, জয়নগর ,বিষ্ণুপুর এলাকার লক্ষাধিক মানুষ। দুরদুরান্ত থেকে চিকিৎসা পাবার আশায় হাসপাতালে এলেও রোগ নিয়েই তাঁদের ফিরে যেতে হওয়ায় রোগী সহ রোগীর পরিবার ক্ষুদ্ধ। বারুইপুরের শঙ্করপুর থেকে আসা গৃহবধূ আসমা বিবি বলেন, ছোট শিশুকে নিয়ে চিকিৎসা করাতে এসেছি। বহির্বিভাগ যে বন্ধ থাকবে তা জানানো হয়নি, ২ টাকা দিয়ে টিকিট কাটবার সময় কেউ বলেনি চিকিৎসক আসবে না। সকাল ৫ টা থেকে এসে লাইন দেওয়ার পর ছোট শিশুর জ্বর তাই নিয়ে ফিরে যেতে হচ্ছে । একই অভিজ্ঞতা জয়নগরের ধোসার বৃদ্ধ পরিমল ঘোষের।

বহির্বিভাগ চিকিৎসা পায়ের সমস্যার জন্য চিকিৎসা করাতে এসেছিলাম। সকাল ৬ টার পর থেকে পায়ের যন্ত্রণা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছি চিকিৎসকের ঘরের সামনে। দুপুর ১২ টার পরও চিকিৎসক না আসায় ফিরে যেতে হচ্ছে। সাধারণ মানুষদের হয়রানি করে কি লাভ হচ্ছে চিকিৎসকদের। যখন চিকিৎসা না পেয়ে কেউ মারা যাবে তাদের পরিবারকে কি জবাব দেবে চিকিৎসকরা। হাসপাতালে চিকিৎসক এলেও কেউ বহির্বিভাগে বসেনি। সব মিলিয়ে পরিষেবা বন্ধ থাকায় প্রবল গরমে দিন ভর হয়রান হয়ে ফিরে যেতে হল দূর দুরান্তের রোগীদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here