ডেস্ক: পাকিস্তান সীমান্ত নয়, ভারতের মূল মাথা ব্যাথার কারণ যে এবার উত্তর-পূর্ব সীমান্ত হতে চলেছে সেকথা আগেই জানিয়েছিলেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। এবার আরও স্পষ্ট করে জানালেন, উত্তর-পূর্ব বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়েই অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে চিন ও পাকিস্তান। ভারতের জনবিস্ফোরণের জন্যও পরোক্ষে এই দুই দেশের সিঁদ কাটার ফন্দিকেই দায়ি করলেন সেনাপ্রধান।

সোমবার দিল্লির এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে রাওয়াত বলেন, ”মূলত দু’টি কারণে লোকজন বাংলাদেশ থেকে ভারতে অনুপ্রবেশ করেন। প্রথমত, জনবিস্ফোরণের ফলে বসতির স্থান সংকুলান হচ্ছে না বাংলাদেশে। দ্বিতীয়ত, বর্ষায় সেদেশের বেশিরভাগ এলাকা ভেসে যায়। ফলে বাস্তুচ্যুত হয়ে ভারতে আশ্রয় নেন বহু মানুষ।” তিনি আরও বলেন, ”পাকিস্তান পরিকল্পনা করেই আমাদের দেশে অনুপ্রবেশকারী ঢোকাচ্ছে। এই কাজে তাদের সাহায্য করছে উত্তরের পড়শি (অর্থাৎ চিন)।”

কিন্তু এদিন অসমের একটি রাজনৈতিক দল নিয়ে মন্তব্য করায় নতুন করে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। মুসলিম সম্প্রদায় সমর্থনপুষ্ট অসমের দল এআইইউডিএফকে (অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট) আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ”বিজেপির থেকেও দ্রুতগতিতে উত্থান হচ্ছে এআইইউডিএফ-এর।” সেনাপ্রধানের এই মন্তব্যের পরই তাঁকে রাজনীতির প্রসঙ্গ থেকে বিরত থাকার জন্য পরামর্শ দেন এআইএমআইএম আসাউদ্দিন ওইয়েসি। তিনি বলেন, ”রাজনৈতিক দল নিয়ে টিপ্পনি করা সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নয়। কোনও রাজনৈতিক দলের সাংবিধানিক ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে উত্থান হতেই পারে।”

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here