international news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি বুধবার জানান, ভারতের দিক থেকে সামান্যতম আগ্রাসনের চেষ্টা হলে তার ‘যোগ্য প্রত্যুত্তর’ দেওয়া হবে। পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও দেশের জনসাধারণ ভারতের শত্রুতাপূর্ণ আচরণ যথাযথ ভাবে সামলানোর জন্য প্রস্তুত। রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত বেতার রেডিও পাকিস্তান কুরেশির বিবৃতিটি প্রচার করে।

পাক বিদেশমন্ত্রী জানিয়েছেন, ”ভারতের যুদ্ধবাজ আচরণের উদ্দেশ্য পাকিস্তানকে উত্তেজিত করা, কিন্তু অতীতেও আমরা ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছি এবং ভবিষ্যতেও আমরা সংযম দেখাব।” যদিও একই সঙ্গে তিনি স্পষ্ট ভাষায় বলেন, আত্মরক্ষা করার পূর্ণ অধিকার পাকিস্তানের রয়েছে। একটি ভারতীয় ড্রোন পাকিস্তান সেনাবাহিনী গুলি করে নামিয়েছে জানিয়ে কুরেশি বলেন, এই ঘটনাই ভারতের আগ্রাসী মানসিকতার প্রমাণ দেয়। যদিও ভারতীয় ড্রোনটি ঠিক কোথায় গুলি করে পাকিস্তানের সেনারা নামিয়েছে সেটি নির্দিষ্ট করে বলেননি পাক বিদেশমন্ত্রী।

কুরেশি বলেন, ”আমরা শান্তির পথে থাকতেই পছন্দ করি কিন্তু শান্তির আকাঙ্খাকে আমাদের দুর্বলতা হিসেবে দেখাটা ভুল।” বিদেশমন্ত্রী ভারতকে বিচক্ষণতার সঙ্গে আচরণ করে শান্তির পথে থাকার বার্তা দিয়েছেন বলে জানিয়েছে রেডিও পাকিস্তান।

সাম্প্রতিক কালে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি কাশ্মীর ও ভারতীয় সংখ্যালঘুদের প্রতি সরকারের বৈষম্যমূলক আচরণ নিয়ে ক্রমাগত বিবৃতি দিয়ে চলেছেন। ইমরান খান আরও একধাপ এগিয়ে নেপালের সঙ্গে ভারতের সীমানা সমস্যা নিয়েও বুধবার একটি টুইট করেছেন। যদিও ভারতের দিক থেকে কুরেশি’র বিবৃতির কোনও প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি। ভারতের বিরুদ্ধে ‘প্ররোচিত’ করার অভিযোগটিও অবশ্য পাকিস্তানের দিক থেকে স্পষ্ট করা হয়নি।

ভারত দীর্ঘদিন ধরেই দেশের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের অযাচিত মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করে আসছে এবং পাকিস্তান থেকে ভারতে সন্ত্রাসবাদ রফতানি বন্ধ করার বিষয়ে বারবার সতর্ক করে আসছে। কিন্তু চিন–ভারত সীমান্তে সাময়িক উত্তেজনার সুযোগে পাকিস্তান সাম্প্রতিক কালে প্রায়শঃই বিভিন্ন বিবৃতি ও মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে চাপে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here