ডেস্ক: আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়ে পাকিস্তানের ১৮২ টি মাদ্রাসাকে বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ জারি করল পাক সরকার। পুলওয়ামায় ভারতীয় জওয়ানদের উপর পাক মদত পুষ্ট জইশ জঙ্গির হামলা চালানোর পর থেকেই আন্তর্জাতিক মহলে চাপের মুখে পড়েছে পাক সরকার। মার্কিন যুক্ত রাষ্ট্র, চিন সহ অন্যান্য দেশের তরফ থেকে পাক সরকারকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যেন কোনওভাবেই পাকিস্তানের মাটিকে জঙ্গির ভূস্বর্গ বানানো না হয়। সেই প্রতিশ্রুতি রাখতেই পাকিস্তানের মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তবে পাকিস্তানের এই ১৮২ টি মাদ্রাসাকে নিষিদ্ধ করার বিষয়ে ইমরান বলেন, তাঁরা বহুদিন ধরেই পাকিস্তানের মাটিকে কেন্দ্র করে চলতে থাকা সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপকে বিনাশ করার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছিলেন। তিনি সাফ জানান তাঁর এই পদক্ষেপের পিছনে কোনওভাবেই ভারত কিংবা অন্যান্য দেশের হুঁশিয়ারি নেই। পাকিস্তানকে জঙ্গির আঁতুড় ঘর বানানোর অভিযোগে বারবারই ভারত সহ অন্যান্য দেশের তরফে পাকিস্তানকে সতর্ক করা হচ্ছিল। পাকিস্তানের ১৮২ টি মাদ্রাসাকে নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি ১২১ জনকে এই সন্ত্রাসের সঙ্গে যোগসাজশ থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাই এই সন্ত্রাসবাদী শিক্ষার প্রাথমিক ক্ষেত্র হিসেবে ১৮২ টি মাদ্রাসাকে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাক সরকার।

 

পাকিস্তানে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি মাদ্রাসা স্কুল চালায় জৈশ-ই-মহম্মদ এবং জামাত-উদ-দাওয়ার মত জঙ্গি সংগঠন গুলি। পাকিস্তানে ৩০০টিরও বেশি মাদ্রাসা স্কুল এরা চালায়। যদিও সংগঠন গুলির দাবি তারা এই সব স্কুলের মাধ্যমে দেশের গরিব শিশুদের শিক্ষা দানের ব্যবস্থা করে থাকেন। কিন্তু এগুলিই যে জঙ্গি তৈরির আঁতুর ঘর তা এতোদিন কিছুতেই মানতে চায়নি পাক সরকার। অবশেষে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কোণঠাসা হয়ে যাওয়ার ভয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here