kolkata bengali news

ডেস্ক: বুধবার সকালবেলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটি টুইট আর তার কিছুকাল পরে একটি ঐতিহাসিক ঘোষণা। বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসাবে অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ ভারতের। ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় তিনশো কিলোমিটার উপরে থাকা ভারতেরই নিষ্ক্রিয় এক উপগ্রহকে তিন মিনিটের মধ্যে ধ্বংস করল ভারতীয় ASAT মিসাইল। দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে এটা যে এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ, তা বলাই বাহুল্য।

ভারতীয় বিজ্ঞানীদের এই সাফল্যে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত দেশের সাধারণ মানুষ। আর একই সঙ্গে ভারতের এই ‘মিশন শক্তি’ নিয়ে বিপরীতার্থক মন্তব্য ভারতের দুই প্রতিবেশি দেশ পাকিস্তান ও চিনের। ভারতের এই ‘শক্তি-শেল’এ যে বেশ চিন্তিত পাকিস্তান, তা তাদের প্রতিক্রিয়া দেখেই সুস্পষ্ট। পাক বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে এক বিব্রিতিএ বলা হয়, ‘মহাকাশ মানব সভ্যতার এক ঐতিহ্য। সকল দেশের সমান অধিকার আছে মহাকাশের উপর। মহাকাশে কোনও রকম সামরিকীকরণ হওয়া উচিৎ নয়। আমরা আশা করব এতদিন যে দেশ এই রকম কার্যকলাপের বিরোধিতা করেছে, তারা বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দেবে। এই ধরণের প্রযুক্তি মানব সভ্যতার কল্যাণের জন্য ব্যবহার হওয়াই শ্রেয়।’

 

অন্যদিকে, ভারতের এই সাফল্য নিয়ে বেশ সংযত চিন। ‘ভারত মহাকাশে কী করেছে, সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট আমরা পেয়েছি। মহাকাশকে শান্ত ও নিরাপদ রাখতে সব দেশ একসঙ্গে কাজ করবে বলেই আমরা আশা করি’, এক বিবৃতিতে জানায় চিন। উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে এই ASAT মিসাইল ক্ষমতাধর দেশ হয় চিন। তবে সেবার তাদের উপগ্রহ ধ্বংস করে কয়েক হাজার টনের ইলেকট্রনিক বর্জ্য মহাকাশে ফেলে ড্রাগনের দেশ। এর ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছিল বিশ্বের প্রভাবশালী প্রতিটি দেশ। সেই তালিকায় ভারতেরও নাম ছিল।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here