ডেস্ক: পাকিস্তানে সম্প্রচারিত হবে না দ্বাদশ আইপিএলের কোনও ম্যাচ, সম্প্রতি এমনটাই জানালেন পাকিস্তানের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ফাওয়াদ আহমেদ চৌধুরী। এর আগে পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর ভারতে পাকিস্তান সুপার লিগের সম্প্রচার বন্ধ করেছিল ডিস্পোর্টস। পাশাপাশি, একই ইস্যুতে পিএসএলের বিশ্বজনীন সম্প্রচার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় আইএমজি রিলায়েন্স। এরই প্রতিবাদে পাকিস্তানে আইপিএল সম্প্রচার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল সে দেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক।

‘ভারতীয় কোম্পানি ও ভারতীয় সরকার পাকিস্তান সুপার লিগ খেলার সময় যে ব্যবহার করেছিল তারপর পাকিস্তানি আর আই পি এল দেখানো হবে না’, জানান ফাওয়াদ আহমেদ চৌধুরী। তাঁর দাবি, পাকিস্তান নাকি বরাবরই খেলা ও রাজনীতিকে একে অপরের থেকে আলাদাই রেখেছে। কিন্তু পুলওয়ামা হামলার পর ভারতীয় সরকার যেভাবে মাঠের মধ্যে রাজনীতিকে প্রবেশ করিয়েছে, তারপর আর আইপিএল সম্প্রচার হতে দেওয়া যায় না।

 

এর পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচে ভারতীয় ক্রিকেটারদের আর্মি ক্যাপ পরে মাঠে নামারও সমালোচনা করেন ফাওয়াদ আহমেদ চৌধুরী। ‘আমরা বরাবরই রাজনীতি থেকে ক্রিকেটকে দূরে সরিয়ে রেখে এসেছি। কিন্তু ভারত আর্মি ক্যাপ পরে মাঠে নেমে রাজনীতি করছে। আইসিসিও এর বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। আমার মতে, পাকিস্তানে আইপিএল না দেখানোয় আসলে ভারতীয় ক্রিকেট ও আইপিএলেরই ক্ষতি হবে। আমরাও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মহাশক্তিশালী একটি দেশ’, বলেন তিনি।

প্রসঙ্গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর থেকেই আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ বয়কট করার ডাক দিয়েছিলেন বহু প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার। সম্প্রতি সেই তালিকার নাম লেখান প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীর ও। ‘আমি মনে করি না কোনও রকম কন্ডিশনাল ব্যান থাকা উচিৎ। হয় তুমি পাকিস্তানকে পুরোপুরি ব্যান করে দাও অথবা পাকিস্তানের সঙ্গে সবকিছু চালু রাখো। পুলওয়ামায় যেটা হয়েছে সেটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায়না’, বলেন গম্ভীর। তিনি আরও যোগ করেন, ‘আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে পাকিস্তান ম্যাচ বয়কট করা হয়তো কঠিন হবে। কিন্তু এশিয়া কাপে পাকিস্তান ম্যাচ বয়কট করা উচিৎ। দেশের কাছে কোনও টুর্নামেন্ট বড় নয়। ৪৪ জন শহীদ জওয়ানের আত্মত্যাগের পরিবর্তে আমরা কি এইটুকু করতে পারি না?’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here