news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ১৯ বছর আগে ম্যাচ গড়াপেটার কথা এতদিনে স্বীকার করলেন সেলিম মালিক। ২০০০ সালে ম্যাচ-গড়াপেটার অভিযোগে ক্রিকেট থেকে চিরনির্বাসিত হয়েছিলেন পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অলরাউন্ডার। অস্ট্রেলিয়ার তিন জন ক্রিকেটারকে ঘুষের প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল প্রাক্তন পাক অধিনায়কের বিরুদ্ধে।

ক্রিকেট দুর্নীতির সঙ্গে পাকিস্তানের নামে জড়িয়ে গিয়েছে এখন। এই দু’দিন আগেই উমর আকমলকে তিন বছরের জন্য নির্বাসিত করেছে পিসিবি। পাকিস্তান সুপার লিগে ম্যাচ ফিক্স করার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। আর তারপরেই মালিকের এই স্বীকারোক্তি। এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেছেন, “১৯ বছর আগে যা করেছি, তার জন্য আমি খুবই দুঃখিত। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল ও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে এই ব্যাপারে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করতে আমি প্রস্তুত।”

১৯৯২ সালে ইমরান খানের পাকিস্তানের হয়ে বিশ্বকাপ জেতেন মালিক। ভিডিওতে তিনি আরও বলেছেন, “আট বছর বয়সে ক্রিকেট খেলা শুরু করি। আজীবন আর কিছুই করিনি। এটাই আমার রুটি-রুজি ছিল। আমি আবেদন করছি, মানবাধিকার আইনে ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িত প্লেয়ারদের যা বিচার হয়, আমার সঙ্গেও যেন তাই হয়। আইসিসি ও পিসিবির সব আইন মেনে তাদের পূর্ণ সহযোগিতা করতে আমি রাজি।”

২০০৮ সালে পাকিস্তানের প্রধান কোচ ও তার চার বছর পর পাক দলের ব্যাটিং কোচের পদের জন্য আবেদন করেন মালিক। কিন্তু দুর্নীতিতে যুক্ত থাকায় তাঁর আবেদন গ্রাহ্য হয়নি। মালিক বলেছেন, “ ম্যাচ ফিক্সিংয়ে যুক্ত থেকেও মহম্মদ আমির, সলমন বাট, মহম্মদ আসিফ ও শার্জিল খানরা খেলল। কিন্তু কোচ হিসেবে বিচারই করা হল না।”

পিসিবি জানিয়েছে দুর্নীতি-দমন শাখার সঙ্গে পূর্ণ সহযোগিতা করলেই মালিক ফিরতে পারবেন খেলায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here