ডেস্ক: ঘটনার সূত্রপাত গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামাতে। জইশ-ই-জঙ্গি আদিলের আত্মঘাতী বিস্ফোরণের জন্য শহীদ হয়েছেন ৪৪ জন সিআরপিএফ জওয়ান। যার প্রত্যাঘ্যাত করেছে ভারত। গত মঙ্গলবার ভোররাতে ভারত-পাক সীমানা অতিক্রম করে বালাকোটে জইশ-ই-মহম্মদের ঘাঁটি ভেঙে গুড়িয়ে দেয় মিরাজ-২০০০। আর এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্তান সরকার। কিছুদিন আগেই পুলওয়ামার ঘটনার জন্য ভারতের সিনেওর্য়ার্কাসরা পাকিস্তানি আর্টিস্টদের ভারতে সিনেমার শ্যুটিং বন্ধের নির্দেশ দেন। এমনকি ভারতে যাতে কোনও পাকিস্তানি শিল্পী ভিসা না পায় সেই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে চিঠিও দেয় সিনেওর্য়ার্কাসরা। এবার ভারতের এয়ারস্ট্রাইকের পাল্টা দিলেন পাকিস্তান সরকার। এদিন পাকিস্তানের তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দিয়েছেন ভারতের কোনও সিনেমা পাকিস্তানের সিনেমাহলে মুক্তি পাবে না।

কার্যত কিছুদিন আগেই অজয় দেবগণ, সলমান খান স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন তাঁদের প্রযোজিত আগামী সিনেমা পাকিস্তানে মুক্তি পাবে না। পাকিস্তান সরকার আরও জানিয়েছে তাঁদের দেশে টেলিভিশনে কোনও ভারতীয় শিল্পীর বিজ্ঞাপণ দেখানো যাবে না। যদিও পাকিস্তানের এহেন পদক্ষেপের ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্য সংস্কৃতির তরফ থেকে কিছু জানানো হয়নি। গত মঙ্গলবার ভোররাতে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকের মাধ্যমে পাকিস্তানের বালাকোটে ৩০০-৩৫০ জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here