ডেস্ক: সীমান্ত নিয়ে দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে উত্তেজনার আবহেই ক্রুইজ মিসাইল উৎক্ষেপণ করল পাকিস্তান৷সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রের ‘নিউ ক্লিয়ার সেকেন্ড স্ট্রাইক’ ক্ষমতা রয়েছে৷ফলে চিন্তা বাড়ল ভারতের৷

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর ইন্টার সার্ভিস পাবলিক রিলেশনস জানিয়েছে,সাবমেরিন থেকে উতক্ষেপণক্ষম বাবর মিসাইলটি সমুদ্রের তলা থেকে একটি ডায়নামিক প্লাটফর্ম থেকে উৎক্ষেপণ করা হয়েছে৷ এর পাল্লা পঁয়তাল্লিশ কিলোমিটার৷এক প্রেস বিবৃতিতে আইএসপিআর জানিয়েছে,ক্ষেপণাস্ত্রটি বিভিন্ন ধরনের ভারী সরঞ্জাম বহন করতে সক্ষম৷এটির সেকেন্ড স্ট্রাইক ক্ষমতা রয়েছে৷সাবমেরিন থেকে উতক্ষেপণক্ষম ‘বাবর’ হল দ্বিতীয় পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ৷এর আগে গত বছরের জানুয়ারি মাসে প্রথম পরীক্ষামূলক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছিল পাকিস্তান৷সামরিক বিশেষজ্ঞরা দীর্ঘদিন ধরেই বলে আসছেন, চিন ও ইউক্রেনের সংস্থা থেকে সরঞ্জাম নিয়ে বাবর তৈরি করা হয়েছে৷

এর আগে পাকিস্তান সাবমেরিন থেকে কোনও ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেনি, এবার তারা সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করায় চওড়া ভাঁজ পড়েছে দিল্লির কপালে৷ইসলামাবাদের এহেন উদোগের পর এখন আর হাল্কাভাবে নেওয়ার উপায় নেই তাদের৷তবে ভারতও সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণক্ষম নিউক্লিয়ার সেকেন্ড স্ট্রাইক ক্ষমতা অর্জনে পিছিয়ে নেই৷ব্যালিস্টিক মিসাইলগুলির তাতপর্যপূর্ণভাবে বড় ধরনের পাল্লা রয়েছে৷ ক্রুইজ মিসাইলের থেকে ওই মিসাইলগুলি আকাশপথে হানা দেওয়া শত্রুপক্ষের বিমান খুব দক্ষতার সঙ্গেই নামাতে সক্ষম৷জেট বিমানের মতো মিসাইলগুলি আকাশে যাতায়াত করতে সক্ষম৷তবে পাকিস্তানের ‘বাবর’ মিসাইলের মতো মিসাইলগুলি সাবমেরিনের টর্পেডো টিউব থেকে শত্রুকে আঘাত হানতে পারে৷ যা দিল্লির ওপর বাড়তি চাপ বাড়াল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here