কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনার প্রস্তাব পাকিস্তানের

0
34

মহানগর ওয়েবডেস্ক: গতকাল কাশ্মীর নিয়ে মধ্যস্থতার অফার ফিরিয়ে দিয়েছে আমেরিকা৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়ে দিয়েছেন, মধ্যস্থতার অফার পুরোটার নির্ভর করছে ভারত ও পাকিস্তানের তা গ্রহণ করার উপর। যেহেতু ভারত তাঁর প্রস্তাব গ্রহণ করেনি, তাই এই বিষয়টি আর আলোচনার টেবিলেই নেই। এবার পাকিস্তান রাষ্ট্রসংঘে দরবার করল৷ ইসলামাবাদ রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছে৷ ভারত সম্প্রতি কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করেছে৷ ফলে উপত্যকা বিশেষ মর্যাদা হারিয়েছে৷ কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল আইনে পরিণত হয়েছে৷ ফলে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখ ২টি পৃথক কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়েছে৷ এরপর তেড়েফুঁড়ে উঠেছে পাকিস্তান৷ ভারতের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসংঘে সরব হতে তারা চিনকে পাশে পাওয়ার চেষ্টা করে৷ এবার রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব পেশ করল পাকিস্তান৷

পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি নিরাপত্তা পরিষদে চিঠি লিখে বলেছেন, পাকিস্তান কোনও সংঘর্ষে প্ররোচনা দেবে না৷ এটাকে আমাদের দুর্বলতা বলে ভাবা উচিত হবে না ভারতের৷ এটা পরিষ্কার নয় যে, এই প্রস্তাবে কী ভাবে সাড়া দেবে ১৫সদস্যের কাউন্সিল৷ পাকিস্তান রাষ্ট্রসংঘে জানিয়েছে, চিন তাদের পাশে আছে৷ ভারত ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর পাক বিদেশমন্ত্রী বেজিংয়ে গিয়ে চিনকে বোঝানোর চেষ্টা করে৷ এরপর ভারত চুপ করে বসে থাকেনি৷ বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বিদেশে গিয়ে একইভাবে চিনকে পাশে পাওয়ার চেষ্টা করে৷ রাষ্ট্রসংঘ পাকিস্তানের প্রস্তাবে সাড়া দেয় কিনা, এখন সেটাই দেখার৷

এর আগে এক বার কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে চেয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এই প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু ভারত তা পত্রপাঠ নাকচ করে। তার কিছুদিন পর সেই প্রস্তাবের ব্যাপারেই মার্কিন প্রেসিডেন্টকে প্রশ্ন করেছিলেন এক সাংবাদিক। ট্রাম্পের জবাব, ‘ওরা যদি কারও মধ্যস্থতা বা সাহায্য চায়, আমি রাজি। আমি এ ব্যাপারে পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলেছি। ভারতের সঙ্গেও খোলাখুলি আলোচনা করেছি। ওরা চাইলে অবশ্যই হস্তক্ষেপ করব।’ পরে আমেরিকা ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে মধ্যস্থতার রাস্তা থেকে সরে আসে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here